মাকসুদ কামাল বলেন, ‘১ জুলাই থেকে সাত কলেজের ভর্তি আবেদন শুরু হওয়ার কথা ছিল। চলমান লকডাউনের কারণে তা পেছানো হয়েছে। ১০ জুলাই থেকে সাত কলেজে ভর্তির আবেদন শুরু হবে, চলবে ২০ আগস্ট পর্যন্ত৷ সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে ভর্তি পরীক্ষার একটি তারিখ ঠিক করা হয়েছে।’

আবেদনের যোগ্যতা ও অন্যান্য

২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক বা সমমান এবং ২০২০ সালের উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে যাঁরা নির্ধারিত শর্ত পূরণ করতে পারবেন, তাঁরাই সাত কলেজে ভর্তির জন্য আবেদন করার যোগ্যতা অর্জন করবেন।

ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে বিজ্ঞান ইউনিটের জন্য মাধ্যমিক বা সমমান এবং উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় (চতুর্থ বিষয়সহ) প্রাপ্ত জিপিএর যোগফল ন্যূনতম ৭, বাণিজ্য ইউনিটে দুই জিপিএর যোগফল ন্যূনতম ৬ দশমিক ৫ এবং কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটে ন্যূনতম ৬ থাকতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষার নম্বর ১২০

সাত কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তির জন্য এবার মোট ১২০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা হবে। এর ৪০ শতাংশ, অর্থাৎ ৪৮ নম্বর পেলে কোনো শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ বলে বিবেচিত হবেন। সাত কলেজের এবারের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি ৪৫০ টাকা।

সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষাবিষয়ক সব তথ্য ও নির্দেশনা পাওয়া যাবে এই ওয়েবসাইটে: (http://7college.du.ac.bd/admission)৷

এদিকে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা প্রাপ্তির বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মাকসুদ কামাল আরও বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের টিকা পেতে হলে সাত কলেজের অধ্যক্ষদের বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে আমাদের কাছে নিয়ে আসতে হবে। সে ক্ষেত্রে আমরা সহযোগিতা করব। অথবা তাঁরা নিজেদের মতো করেও টিকা পাওয়ার চেষ্টা করতে পারেন।’