বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সূচি অনুযায়ী, ১৭ অক্টোবর ফরিদপুর ও গোপালগঞ্জের কেন্দ্রগুলো, ১৮ অক্টোবর কিশোরগঞ্জ ও শরিয়তপুরের কেন্দ্রগুলো, ২০ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ ও মাদারীপুরের কেন্দ্রগুলো, ২১ অক্টোবর নরসিংদী ও রাজবাড়ীর কেন্দ্রগুলো, ২৩ অক্টোবর মুন্সিগঞ্জ ও মানিকগঞ্জের কেন্দ্রগুলো, ১৪ অক্টোবর টাঙ্গাইলের কেন্দ্রগুলো, ২৫ অক্টোবর গাজীপুরে কেন্দ্রগুলো, ২৭ অক্টোবর ঢাকা মহানগরীর ঢাকা-১ থেকে ঢাকা-৪৫ কেন্দ্রগুলো এবং ২৮ অক্টোবর ঢাকা-৪৬ থেকে রাজধানীর অবশিষ্ট কেন্দ্রগুলোকে উত্তরপত্র ও আনুষঙ্গিক সরঞ্জাম বিতরণ করা হবে।

default-image

শিক্ষা বোর্ড বলছে, নির্ধারিত তারিখে কেন্দ্রসচিব নিজে বা তাঁর প্রাধিকারপ্রাপ্ত একজন শিক্ষকের (যিনি পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট) মাধ্যমে সরঞ্জাম গ্রহণ করতে হবে। কোনো অবস্থাতেই শিক্ষক ছাড়া অফিস সহকারী বা অন্য কাউকে প্রাধিকারপত্র দেওয়া যাবে না। প্রধান শিক্ষক, অধ্যক্ষ বা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বা অধ্যক্ষের বেলার সরঞ্জাম গ্রহণের আবেদনপত্রে কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (জেলা পর্যায়ের ডিসি, এডিসি ও উপজেলা পর্যায়ের ইউএনও) প্রতিস্বাক্ষর থাকতে হবে এবং প্রাধিকারপ্রাপ্ত শিক্ষকের বেলা প্রাধিকারপত্রে কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (জেলা পর্যায়ে ডিসি, এডিসি এবং উপজেলা পর্যায়ে ইউএনও) প্রতিস্বাক্ষর থাকতে হবে। বর্তমানে ঢাকা শহরে সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ট্রাক চলাচল নিষিদ্ধ থাকায় বিকল্প পরিবহনের ব্যবস্থা করতে হবে এবং সরঞ্জাম গাড়িতে উঠানোর জন্য শিক্ষা বোর্ড কোনো ব্যয় বহন করবে না বলে জানানো হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

default-image

চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষা আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে। ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত এসএসসির লিখিত পরীক্ষা চলবে।

পরীক্ষার সূচির বিশেষ নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কোডিড-১৯ অতিমারির কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষার কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষার সময় দেড় ঘণ্টা। এমসিকিউ ও সিকিউ অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনোও বিরতি থাকবে না। পরীক্ষার্থীরা নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানপ্রধানের কাছ থেকে পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে তিন দিন আগেই প্রবেশপত্র সংগ্রহ করবে।

এসএসসির রুটিন

এসএসসির সময়সূচিতে জানানো হয়, বিশেষ প্রয়োজনে বোর্ড কর্তৃপক্ষ এ সময়সূচি পরিবর্তন করতে পারবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা এবং বেলা ২টা থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

default-image

প্রথম দিন ১৪ নভেম্বর সকালে পদার্থবিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), ১৫ নভেম্বর বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা সকালে এবং হিসাববিজ্ঞান বিকেলে অনুষ্ঠিত হবে। ১৬ নভেম্বর (তত্ত্বীয়) রসায়ন, ১৮ নভেম্বর শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া (তত্ত্বীয়) অনুষ্ঠিত হবে। ২১ নভেম্বর সকালে ভূগোল ও পরিবেশ এবং বিকেলে ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ২২ নভেম্বর উচ্চতর গণিত ও জীববিজ্ঞান সকালে অনুষ্ঠিত হবে। ২৩ নভেম্বর পৌরনীতি ও নাগরিকতা বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে সকালে আর বিকেলে ব্যবসায় উদ্যোগ বিষয়ের পরীক্ষা হবে।

পরীক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন