default-image
বিজ্ঞাপন

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন ২০২০ সালের আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪ হাজার ৪৮ জন পরীক্ষার্থী, যা মোট পরীক্ষার্থীর ৪ দশমিক ৫৮ শতাংশ। ২০১৯ সালের চেয়ে এবার জিপিএ-৫ প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। আগের বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিলেন ২ হাজার ২৪৩ জন, যা তখনকার মোট পরীক্ষার্থীর ২ দশমিক ৬০ শতাংশ।

গতকাল শনিবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার মূল্যায়নের ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এবার পরীক্ষা ছাড়াই জেএসসি ও সমমান এবং এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার গড় ফলের ভিত্তিতে পরীক্ষার্থীদের ফল মূল্যায়ন করা হয়েছে।

২০২০ সালে আলিমে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৮৮ হাজার ৩০২ জন। পরীক্ষা না হওয়ায় সব পরীক্ষার্থীই পাস করেছেন। এর মধ্যে ছাত্র ৪৮ হাজার ২৪৬ এবং ছাত্রী ৪০ হাজার ৫৬ জন। মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে সাধারণ শাখার পরীক্ষার্থী ৮০ হাজার ৭৭২, বিজ্ঞানে ৬ হাজার ৫৪৫ এবং মুজাব্বিদ শাখায় ৯৮৫ জন।

কারিগরিতে জিপিএ-৫ পেলেন ৩ শতাংশ

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন ২০২০ সালের এইচএসসি (বিএম), ডিপ্লোমা ইন কমার্স ও এইচএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর ৩ দশমিক ১০ শতাংশ ফলের সর্বোচ্চ সূচক জিপিএ-৫ পেয়েছেন।

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার মূল্যায়নের ফল গতকাল শনিবার প্রকাশ করা হয়েছে। এবার পরীক্ষা ছাড়াই জেএসসি ও সমমান এবং এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার গড় ফলের ভিত্তিতে পরীক্ষার্থীদের এইচএসসির ফল মূল্যায়ন করা হয়েছে।

এইচএসসি (বিএম), ডিপ্লোমা ইন কমার্স ও এইচএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় ১ হাজার ৮৪০টি প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ১ লাখ ৩৩ হাজার ৭৪৬ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছিলেন। এবারের মূল্যায়নপ্রক্রিয়ায় সবাই পাস করেছেন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪ হাজার ১৪৫ জন। এর মধ্যে এইচএসসি বিএমে ৪ হাজার ৯৩ জন, ডিপ্লোমা ইন কমার্সে ১৬ জন এবং ভোকেশনালে ৩৬ জন জিপিএ-৫ পেয়েছেন। এই পরীক্ষায় ২০১৯ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিলেন ৩ হাজার ২৩৬ জন।

বিজ্ঞাপন
পরীক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন