default-image

করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি রোববার প্রথম আলোকে এ তথ্য জানিয়েছেন। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী রোববার পর্যন্ত এ ছুটি ছিল। শেষ দিনে এসে ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা দিল সরকার। তবে কওমি মাদ্রাসাগুলো এই সিদ্ধান্তের বাইরে থাকবে।

এদিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ছুটিতে শিক্ষার্থীরা যাতে বাসস্থানে বসে নিজ নিজ পাঠ্যবই পড়ে, সেই বিষয়টি প্রধান শিক্ষকেরা অভিভাবকদের মাধ্যমে নিশ্চিত করবেন। সরকারের পরিকল্পনা হলো, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে শিক্ষকদের করোনাভাইরাসের টিকা দিতে। ইতিমধ্যে শিক্ষকদের টিকা দিতে বলা হয়েছে।

এ ছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকেও খোলার বিষয়ে প্রস্তুত করার জন্য বলে রাখা হয়েছে। সরকার শিক্ষার্থীদের নিয়ে কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না। এ জন্যই বারবার ছুটি বাড়ানো হচ্ছে। পরিস্থিতি দেখে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে চায়।

বিজ্ঞাপন
default-image

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বাস্তবতায় গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চলছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকায় প্রায় চার কোটি শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বিঘ্নিত হচ্ছে। ইতিমধ্যে গত বছরের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা এবং জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

গত বছরের উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষাও হয়নি। জেএসসি ও এসএসসি এবং সমমানের পরীক্ষার গড় ফলের ভিত্তিতে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়নের ফল এ বছর ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছাড়া বিদ্যালয়ে বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই শিক্ষার্থীরা ওপরের শ্রেণিতে উঠেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ তথ্যমতে, দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মোট মারা গেছেন ৮ হাজার ২৬৬ জন। আর করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৪০ হাজার ২৬৬ জন। আক্রান্ত লোকজনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৮৬ হাজার ৭৬৭ জন। দেশে গত ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

পরীক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন