বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে ঢাকা অঞ্চলের কেন্দ্র সচিবদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় দাখিল পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বিতরণ করা হয়। কাল রোববার কুমিল্লার নবাব ফয়জুন্নেসা সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে কুমিল্লা অঞ্চলের কেন্দ্র সচিবদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বিতরণ করা হবে।

৩০ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডে চট্টগ্রাম অঞ্চলের, আগামী ১৭ অক্টোবর খুলনা অঞ্চলের, ২০ অক্টোবর রংপুর অঞ্চলের, ২৪ অক্টোবর রাজশাহী অঞ্চলের, ২৬ অক্টোবর সিলেট অঞ্চলের, ৩১ অক্টোবর বরিশাল অঞ্চলের কেন্দ্র সচিবদের মতবিনিময় সভায় দাখিল পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বিতরণ করা হবে। যদিও খুলনা, রংপুর, রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল অঞ্চলের মতবিনিময় সভার স্থান সম্পর্কে পরবর্তী সময়ে জানানো হবে বলে জানিয়েছে মাদ্রাসা বোর্ড।

বোর্ড বলছে, দাখিল পরীক্ষা গ্রহণ–সম্পর্কিত মতবিনিময় সভায় কেন্দ্র সচিবদের নির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী অংশ নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হলো। প্রবেশপত্র গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক বা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কর্তৃক স্বাক্ষর সত্যায়নসহ প্রাধিকারপত্র সঙ্গে আনতে হবে। আর মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে (www.bmeb.gov.bd) প্রদর্শিত কেন্দ্র সচিবদের রেজিস্ট্রেশন ফরম ডাউনলোড দিয়ে যথাযথভাবে পূরণ করে প্রবেশপত্র গ্রহণের সময় জমা দিতে হবে।

দাখিলে যেদিন যে পরীক্ষা 

চলতি বছরের দাখিল পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ১৪ নভেম্বর। তিন দিনে অনুষ্ঠিত হবে এই পরীক্ষা। শেষ হবে ২১ নভেম্বর। বৃহস্পতিবার ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার সময়সূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড।

দাখিল পরীক্ষার ঘোষিত সময়সূচি অনুযায়ী, কোরআন মাজিদ ও তাজভিদ এবং পদার্থবিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) বিষয়ের পরীক্ষা হবে প্রথম দিন (১৪ নভেম্বর) এবং ১৮ নভেম্বর হবে হাদিস শরিফের পরীক্ষা। আর ২১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে ইসলামের ইতিহাস, রসায়ন (তত্ত্বীয়), তাজভিদ নসর ও নজম (মুজাব্বিদ গ্রুপ) এবং তাজভিদ (হিফজুল কোরআন গ্রুপ)।

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. কামাল উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, এখানে চারটি গ্রুপের বিষয় আছে। কিন্তু একেকটি গ্রুপের একজন পরীক্ষার্থীকে তিনটি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে।

এবার আগেই সিদ্ধান্ত হয়েছে, এ বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে শুধু গ্রুপভিত্তিক (যে শিক্ষার্থী যে শাখার) তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে হবে। আবশ্যিক ও চতুর্থ বিষয়ে কোনো পরীক্ষা হবে না। জেএসসি ও সমমান এবং এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার নম্বরের ভিত্তিতে ‘বিষয় ম্যাপিং’ করে আবশ্যিক ও চতুর্থ বিষয়ের নম্বর দেওয়া হবে।

দাখিলের সময়সূচিতে দেওয়া নির্দেশনায় বলা হয়েছে, করোনার কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হবে এই পরীক্ষা। পরীক্ষার সময় দেড় ঘণ্টা। তবে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। এমসিকিউ এবং সিকিউ (সৃজনশীল প্রশ্ন) অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না।

পরীক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন