default-image

অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির মাস্টার্স অব পাবলিক হেলথ প্রোগ্রাম কর্তৃক আয়োজিত ‘COVID-19 SITUATION IN BANGLADESH: HOW TO ADDRESS?’ শীর্ষক এক ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১ মে রাত আটটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচারিত হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান মো. লিয়াকত আলী সিকদার। মুখ্য আলোচক ছিলেন অধ্যাপক ডা. কাজী তরিকুল ইসলাম, সদস্য, কোভিড-১৯–বিষয়ক জাতীয় পরামর্শক কমিটি। এ ছাড়া আলোচক ছিলেন অধ্যাপক ড. গোলাম মো. মাদবর, মনমাউত ইউনিভার্সিটি, নিউ জার্সি, ইউএসএ, ডা. গোলাম রাহাত খান, ইমার্জেন্সি মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসেস, ইউকে।

বিজ্ঞাপন

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. ফরহাদ আলী খান, গ্লোবাল এপিডেমিওলোজি ডাইরেক্টর, আস্ট্রাজেনেকা ফার্মাসিউটিক্যালস, সুইডেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ড. এম শাহীন খান, অধ্যাপক, সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও সদস্য, বোর্ড অব ট্রাস্টিজ, অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি।

অধ্যাপক ড. এম শাহীন খানের সঞ্চালনায় এবং মো. লিয়াকত আলী সিকদারের সভাপতিত্বে বক্তারা কোভিড-১৯ এর ২য়/৩য় ঢেউ, সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি, ‘The process of infection chain’–কে অনুসরণ করা, শট টার্ম এবং লং টার্ম পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলেন। তাঁরা আরও বলেন, টিকার কোনো বিকল্প নেই এবং বাংলাদেশে টিকা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন। বক্তারা কোভিড নিয়ন্ত্রণের জন্য আইপিসির ওপরে অধিক গুরুত্ব দেওয়ার পরামর্শ দেন।

বিজ্ঞাপন
উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন