default-image

দেশ–বিদেশের বিভিন্ন সংগঠনে কর্মদক্ষতা প্রদর্শন করায় প্রায় শতাধিক প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের লাখো গ্র্যাজুয়েট প্রচুর সুনাম ও সুখ্যাতি অর্জন করেছেন। অনেক বড় বড় প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী, কম্পিউটার বিজ্ঞানী, হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজার, সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট, অ্যাকাউন্টস, আইটি বিশেষজ্ঞ, বিজ্ঞ বিচারক ও আইন বিশেষজ্ঞ অতি সুনামের সঙ্গে ডিগ্রি লাভ করে দেশে ও বিদেশে সুনামের সঙ্গে দক্ষতা প্রদর্শন করে চলছেন।

যাত্রা শুরু

এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি চট্টগ্রাম (ইউসিটিসি) ২০১৫ সালে একাডেমিক স্বীকৃতি পায়। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি ৭টি কোর্স অনুমতি লাভের মাত্র ২ বছরেই চট্টগ্রামের প্রাণকেন্দ্র বহদ্দারহাট জংশনে ক্যাম্পাসের মাধ্যমে আধুনিক সৃষ্টিশীল বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে সর্বত্র সুপরিচিত লাভ করে।

আলোকিত ক্যাম্পাস

একদল দক্ষ-সুশিক্ষিত মেধাবী দেশি-বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিগ্রি নিয়ে আন্তর্জাতিক মানের সঙ্গে সংগতি রেখে শিক্ষাদান করে চলেছেন এবং ক্লাসরুমের শৃঙ্খলা, ন্যায়নীতি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পরিবেশে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় ক্যাম্পাস মুখরিত। মাতৃভাষার প্রতি অপরিসীম শ্রদ্ধা রেখে শিক্ষার্থীদের তৈরি করতে সদা সচেষ্ট। যাতে তাঁরা ভালো ডিগ্রি নিয়ে কর্মক্ষেত্রে যোগ্যতা প্রমাণ করে বড় বড় চাকরিতে সেবাদান করতে পারেন। ইউসিটিসি সরকার ঘোষিত সব দিবস পালন করে। বিশেষত বিজয় দিবস, মাতৃভাষা দিবস ইত্যাদি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয়। ইউসিটিসি সম্পূর্ণ সন্ত্রাসমুক্ত, রাজনীতিমুক্ত ও কোলাহলমুক্ত এবং নকলমুক্ত। বিশ্ববিদ্যালয় পরিবেশে ইভটি জিংয়ের সুযোগ নেই।

প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজ

ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাস পরিচালনায় অভিজ্ঞ মানবাধিকার সংগঠক মুহাম্মদ ওসমান ইউসিটিসির প্রতিষ্ঠাতা এবং বোর্ড অব ট্রাস্টিজ সেক্রেটারি। বোর্ডের সভাপতি নবিউল আলম তালুকদারসহ সব সদস্য বিশ্ববিদ্যালয়ের গতিশীলতায় অসাধারণ ভূমিকা রেখে আসছেন। অধ্যাপক মো. ইউনুছ ২০১৭ সালে প্রথমে অধ্যাপক এবং স্কুল অব বিজনেসের ডিন পদে কাজ শুরু করেন। পরে ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য পদে দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন কাজকর্ম পরিচালনাসহ ৬টি বিজনেস বিষয়ে বিবিএ, এমবিএ কোর্সে শিক্ষাদান করেন। ২০১৮ সালে ১ আগস্ট মহামান্য রাষ্ট্রপতি কর্তৃক ইউসিটিসির প্রথম উপাচার্য পদে নিয়োজিত হন এবং বোর্ড অব ট্রাস্টিজ চেয়ারম্যান যোগদানপত্রে অনুস্বাক্ষর করেন।

শিক্ষা কার্যক্রম


বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে ৩টি অনুষদের সৃজনশীল ৭টি বিষয় পাঠদান করা হয়। পিএইচডি ও বিদেশি ডিগ্রিধারী শিক্ষকেরা সবাই নিয়মিত ও স্থায়ী শিক্ষক। এমপিএ ১ বছর কোর্সের ১২ জন উত্তীর্ণ ছাত্র সার্টিফিকেট নিয়ে দেশের অনেক নামকরা প্রতিষ্ঠানে উচ্চ বেতনে চাকরি করে অনেকে পদোন্নতি পেয়েছেন।
ক্রিয়েটিভ স্কুল অব বিজনেস অধীনে পড়ানো হয় ১. ব্যাংকিং ও ফাইন্যান্স ২. অ্যাকাউন্টিং ৩. ম্যানেজমেন্ট ৪. মার্কেটিং ও ৫. সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট। রয়েছে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ এবং মাস্টার অব পাবলিক হেলথ বিভাগ।

default-image

ডিজিটাল শ্রেণিকক্ষ ও ল্যাব

শ্রেণিকক্ষ বললে প্রথমে ব্ল্যাকবোর্ড ও চক-ডাস্টারের কথা চলে আসে। তবে সে যুগ অনেক আগেই পার হয়েছে। বর্তমানে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হোয়াইট বোর্ড ও মার্কার পেন দিয়ে চলে কার্যক্রম। তবে এর থেকেও এক ধাপ এগিয়ে ইউসিটিসি। এখানে ডিজিটাল স্মার্ট বোর্ডের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পাঠ বুঝিয়ে দেন শিক্ষকেরা। ১০ তলাবিশিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়টিতে শ্রেণিকক্ষ রয়েছে ৩৬টি। শিক্ষকদের বসার জন্য রয়েছে পর্যাপ্ত কক্ষ। প্রতিটা কক্ষ শীতাতপনিয়ন্ত্রিত। এ ছাড়া প্রায় প্রতিটা বিভাগের রয়েছে আধুনিক কম্পিউটার ল্যাব। যেখানে একসঙ্গে ৩৫ থেকে ৪০ জন শিক্ষার্থী একসঙ্গে বসে কাজ করতে পারেন।

বিজ্ঞাপন

৫ হাজার বই সমৃদ্ধ পাঠাগার

বিশ্ববিদ্যালয় ভবনে ৫ হাজার বই সমৃদ্ধ একটি কেন্দ্রীয় পাঠাগার রয়েছে। একসঙ্গে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী বসে বই পড়তে পারেন। এখানে রয়েছে প্রকৌশল ও বিজ্ঞানবিষয়ক নানা বই, ভাষা, সাহিত্য, বিপণন, অর্থবিদ্যা, ব্যবস্থাপনা, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনাবিষয়ক বই ও বিভিন্ন অভিধান। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় পাঠাগারে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার উদ্বোধন করা হয়েছে। এখানে মহান ভাষা আন্দোলন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক দেড় শতাধিক বই রয়েছে।

সহশিক্ষা কার্যক্রম

শিক্ষার্থীদের মেধাবিকাশ ও দক্ষতা বাড়ানোর জন্য একাডেমিক পড়াশোনার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের নিয়মিত উৎসাহিত করা হয়। এখানে রয়েছে কালচারাল ক্লাব, ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব, বিজনেস ক্লাব, স্পোর্টস ক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠন, যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা মননশীল উৎকর্ষের চর্চা করেন।

বিস্তারিত

বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন https://www.uctc.edu.bd/ সাইটে। ই-মেইল: [email protected] ফোন: ০১৭০৭৫০৮০৮০, ০১৭০৭৫৮০৮১

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন