বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত ৩০ সেপ্টেম্বরের এ আয়োজনের প্রধান অতিথি হিসেবে জুমের মাধ্যমে যুক্ত হন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার। এ ছাড়াও ছিলেন ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস, বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য সামসাদ মর্তূজা ও বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রাস্টি বোর্ডের বিশেষ উপদেষ্টা অধ্যাপক ইমরান রহমান।

ইএমকে সেন্টারকে বাংলাদেশের একটি প্রধান আমেরিকান স্পেস আখ্যা দিয়ে রাষ্ট্রদূত মিলার এর নবম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানান এবং কোভিড–১৯ অতিমারির মধ্যেও সেন্টারটি যেভাবে নয় শতাধিক অনুষ্ঠান আয়োজন করে প্রায় ৬০ হাজার মানুষকে যুক্ত করেছে, তার জন্য অভিনন্দন জানান।

রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘গত নয় বছরে ইএমকে সেন্টার সত্যিকার অর্থেই বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার বন্ধুত্বকে ধারণ করেছে এবং বাংলাদেশের তরুণদের জন্য একটি নিরাপদ ও সৃজনশীল স্থান হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছে, যেখানে তরুণেরা যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি ও শিল্পীদের সঙ্গে নিজেদের যুক্ত করতে পারছে।’

ইউল্যাব বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য সামসাদ মর্তূজা বলেন, ‘ইএমকে সেন্টার এই অঞ্চলে একটি সেরা সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছে নিজেদের।’ অতিমারির মধ্যেও তরুণদের যুক্ত করতে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য তিনি ইএমকে সেন্টারের প্রশংসা করেন।

অধ্যাপক ইমরান রহমান ইএমকে সেন্টারের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও বিশেষভাবে উদ্যোক্তাদের জন্য সহায়ক কর্মসূচির কথা উল্লেখ করেন এবং এ ধরনের অনুষ্ঠান ভবিষ্যতেও আয়োজন করার পরামর্শ দেন।

ইএমকের নবম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজন শুরু হয় বিকেল ৪টায় মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ময়নার উদ্বোধনী প্রদর্শনীর মধ্যে দিয়ে। চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন রহমত আলী, মানস বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো অভিনেতারা। চলচ্চিত্রটি আবু ইসহাকের ছোট গল্প ‘ময়না কেন কথা কয়না’র ওপর ভিত্তি করে নির্মিত। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ইএমকে সেন্টার সরকারি অনুদান পাওয়া এই চলচ্চিত্রটির প্রযোজনার সঙ্গে যুক্ত হয়।

চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর পর চিত্রকর মং মং শোর একক চিত্র প্রদর্শনী ‘জেলেদের গল্প’ উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অলোক রায় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক বিশ্বজিৎ গোস্বামী।

এ ছাড়া শপআপের সহপ্রতিষ্ঠাতা সিফাত সারোয়ার, চিত্রকর মুনজেরিন রিমঝিম ও ওম্যান টেকপ্রেনারের প্রতিযোগী নাদিয়া নাজিম তাঁদের অভিজ্ঞতা জানান অনুষ্ঠানে। পুরো আয়োজনটি ফেসবুক ও ইউটিউবে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

২০১২ সালে বাংলাদেশের বন্ধু সিনেটর এডওয়ার্ড এম কেনেডির নামে প্রতিষ্ঠিত হয় ইএমকে সেন্টার।

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন