ওয়েবিনারের আদবকেতা

করোনার এই সময়টাতে সবকিছুতেই বদলের ছোঁয়া লেগেছে। ঘরে বসে কাজ করতে জানা, অনলাইন ক্লাস থেকে সঠিকভাবে নোট টুকে নেওয়া কিংবা জুম অ্যাপের সঠিক ব্যবহার—এসব তো হয়ে গেছে নিত্যদিনের ব্যাপার, যা আগে অনেকে ভেবেও দেখেননি! এই পরিবর্তনের স্পর্শ লেগেছে সেমিনার আর কর্মশালার দুনিয়াতেও, জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে ওয়েবিনারের।

সোজা কথায়, ওয়েবিনার হলো অনলাইন সেমিনার। এটি হতে পারে একটি কর্মশালা, বক্তৃতা কিংবা প্রেজেন্টেশন। এই ওয়েবিনারগুলো ভালোভাবে চালানোর জন্য চাই জুম বা গুগল মিটের মতো সফটওয়্যার। সারা বিশ্বের মতো করোনাকালে বাংলাদেশেও আয়োজিত হয়েছে ও হচ্ছে বেশ কিছু ওয়েব কনফারেন্স, কর্মশালা ও বক্তৃতা। এই কার্যক্রমগুলোতে অংশগ্রহণের মাধ্যমে তরুণেরা নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধি করছে। প্রস্তুত হচ্ছে বদলে যাওয়া পৃথিবীতে নিজেদের খাপ খাওয়ানোর জন্য।

অনেক ওয়েবিনারেই সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে অংশগ্রহণ করা যায়। আবার কোনো কোনোটিতে অর্থ ব্যয় করতে হয়। এই ক্ষেত্রটিতে সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো নতুন বিষয় সম্বন্ধে জানার জন্য বা নিজের নেটওয়ার্কটিকে বিস্তৃত করার জন্য আপনাকে ঘরের বাইরে যেতে হচ্ছে না।

প্রশ্ন জাগতে পারে, কীভাবে খোঁজ পাব এত সব ওয়েবিনারের?

তরুণেরা নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য চোখ রাখতে পারেন ফেসবুকের ইভেন্ট অংশটিতে। এ ছাড়া নিচের ওয়েবসাইটগুলো বেশ কাজের:

youthop.com

emkcenter.org/join-us/upcoming-events

ওয়েবিনারের ক্ষেত্রে মনে রাখা দরকার

  • সময়মতো উপস্থিত হোন আয়োজনটিতে।

  • আলোচনাকে প্রাণবন্ত করে তুলতে ব্যবহার করুন চ্যাটবক্স। তবে আপনার বার্তার জন্য যেন মূল আলোচনা থেকে অন্যদের মনোযোগ সরে না যায়, সেদিকেও নজর রাখুন।

  • কোনো একজন বক্তা কথা বলা শেষ করলে তবেই আপনার মতামত উপস্থাপন করুন। ব্যবহার করতে পারেন হ্যান্ডরেইজিং অপশন।

  • ওয়েবিনারে যদি কোনো পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করা হয়, সেই সময়টা আপনার ক্যামেরা বন্ধ রাখুন।

  • বিরতি চলাকালে আপনার ক্যামেরাটি খোলা থাকলে সেটি বিব্রতকর পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে। তাই এই সময়টিতেও ক্যামেরা বন্ধ রাখুন।

  • কোনো প্রশ্ন থাকলে, অপ্রয়োজনীয় ভূমিকা না করে সরাসরি আপনার প্রশ্নটি করুন। ওয়েবিনারে প্রশ্নোত্তর পর্ব থাকলে তখনই এই প্রশ্নটি উপস্থাপন করুন। আর যদি মনে হয়, এক্ষুনি প্রশ্নটি করা গুরুত্বপূর্ণ, তবে সেটি চ্যাটবক্সে লিখে দিতে পারেন।

  • অন্যরা যখন কথা বলছে, তখন আপনার মাইক্রোফোনটি মিউট করে রাখুন, যেন কোনো ধরনের আওয়াজ মূল আলোচনার ক্ষেত্রে সমস্যা হয়ে না দাঁড়ায়।

সূত্র: লাইভওয়েবিনার ডটকম, বিজনেস ডটকম, হাবস্পট ব্লগ।