বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ড. মো. আবদুল মান্নান বক্তব্যের শুরুতে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার এবং জাতীয় চার নেতাসহ শহীদের শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, সারা বিশ্বে বিগত এক যুগে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে এবং তিনি আশা করেন, আগামী এক যুগে এর সংখ্যা হবে তিন গুণ। হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে এ অঞ্চলে অগ্রবর্তী ভূমিকা পালন করছে এবং শিক্ষার্থীরা যাতে বাস্তবসম্মত জ্ঞান, দক্ষতা, নৈতিক মূল্যবোধ, সেবার মনোভাব নিয়ে এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে তাদের কর্মজীবনে প্রবেশ করতে পারে, তার জন্য এ বিশ্ববিদ্যালয় বদ্ধপরিকর। উচ্চশিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক মানের গবেষণা কেন্দ্র তৈরি করার কাজ পরিকল্পনামাফিক এগিয়ে চলছে। তিনি আরও বলেন, ‘উন্নত দেশ হিসেবে পদার্পণ করার জন্য এখন থেকে গুণগত শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে আমাদের সচেষ্ট থাকতে হবে।’

সভার সভাপতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ–উপাচার্য ড. আবুল খায়ের উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, হামদর্দ একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান এবং হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ গরিব এবং মেধাবী শিক্ষার্থীদের সব সময় আর্থিক সাহায্য করে থাকে এবং ভবিষতেও করবে। এ ছাড়া তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সহশিক্ষা কার্যক্রমের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. চৌধুরী মো. বাবুল হাসান এবং ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ও কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন কলেজ ও মাদ্রাসার আমন্ত্রিত অধ্যক্ষরা। এ ছাড়া মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. এম লিয়াকত আলি খান; বিজ্ঞান, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) ড. মোহাম্মদ রবিউল আলম এবং ওই অনুষদের অধ্যাপক ড. মো. শরিফ উদ্দিন; ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. ফারুক হোসেন; পাবলিক হেলথ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসাইন; ইউনানি মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. খায়রুল আলম; আয়ুর্বেদিক মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মো. বাবুল আক্তার, ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. আবুল কালাম আজাদ; গণিত বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক মুন্সি; সিএসই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মো. মনোয়ার হোসেন।

মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য প্রদান ও অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. মো. মোয়াজ্জম হোসেন। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষকেরা, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষাবিষয়ক মতবিনিময় সভায় ৭০টি কলেজ ও মাদ্রাসার অধ্যক্ষরা উপস্থিত ছিলেন। বিজ্ঞপ্তি

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন