default-image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয় দফায় উপাচার্যের সম্প্রতি মেয়াদ পূরণ করেছেন অধ্যাপক মীজানুর রহমান। পরবর্তী উপাচার্য নিয়োগ ও কার্যভার গ্রহণ না করা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনুযায়ী, কোষাধ্যক্ষ কামালউদ্দীন আহমদ ভারপ্রাপ্ত উপাচার্যের দায়িত্ব পালন করছেন। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত উপাচার্যের জন্য দাবি জানিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সংগঠনটি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এবার উপাচার্য নিয়োগের দাবি করেছে।

আজ রোববার সংগঠনটি গণমাধ্যমে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে এই দাবি জানায়।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি নূরে আলম আবদুল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক শামীমা বেগম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত উপাচার্য নেই। এমতাবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাসহ সার্বিক উন্নয়নের স্বার্থে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকবৃন্দের মধ্য থেকে উপাচার্য নিয়োগ করার জন্য সরকারের নিকট দাবি জানাচ্ছি।’

শিক্ষক সমিতির সভাপতি নূরে আলম আব্দুল্লাহ বলেন, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপকের সংখ্যা প্রায় ১০৮ জন। এর মধ্যে গ্রেড-১ পদমর্যাদায় আছেন ২৬ অধ্যাপক। এই অধ্যাপকদের অনেকেই সরকারের অনেক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের দায়িত্ব পালনের জন্য তাঁদের যথেষ্ট দক্ষতা ও যোগ্যতা রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপকদের মধ্য থেকেই উপাচার্যের দায়িত্ব দেওয়া হোক।

বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০০৫ সালে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞানের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম প্রথম উপাচার্যের দায়িত্ব পান। এরপর ২০০৮ সাল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের অধ্যাপক আবু হোসেন সিদ্দিক দ্বিতীয় উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মেসবাহ উদ্দিনকে তৃতীয় উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দেয় সরকার। সর্বশেষ ২০১৩ সালে অধ্যাপক মীজানুর রহমান চতুর্থ উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান। পরে ২০১৭ সালে আবার দ্বিতীয় মেয়াদে নিয়োগ পান তিনি। গত শুক্রবার দ্বিতীয় দফায় উপাচার্যের মেয়াদ পূরণ করেছেন মীজানুর রহমান।

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন