বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আল নকীব চৌধুরী জানান, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বাংলাদেশ স্টেম ফাউন্ডেশন প্রথমবারের মতো আয়োজন করে ‘বিডিস্টেম ফেস্ট ২০২০-২১’। এ আয়োজনের অংশ হিসেবে জাতীয় স্টেম প্রতি‌যো‌গিতা এবং ফোরআইআর–বিষয়ক আন্তর্জাতিক সিম্পোজিয়াম আয়োজন করা হয়। দেশের বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে নতুন উদ্ভাবনী প্রকল্প নিয়ে জাতীয় স্টেম প্রতি‌যো‌গিতার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে অতিথিরা বলেন, ‘প্রযুক্তিগত উন্নয়নের গতির ফলে মানুষের জীবনের আর্থসামাজিক এবং অবকাঠামোগত পরিবর্তনের মধ্যে আন্তসম্পর্ক রয়েছে। যা আমাদের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন নির্দেশ করে এবং একটি নতুন যুগকে চিহ্নিত করে। এসডিজি-২০৩০–এর ১৭টি গোলের মধ্যে ১৩টি গোল বা লক্ষ্যমাত্রাকে কেন্দ্র করে জাতীয় স্টেম প্রতি‌যো‌গিতা সাজানো হয়েছিল।’

বাংলাদেশ স্টেম ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক মহিদুস সামাদ খান জানান, চতুর্থ শিল্পবিপ্লব বা ফোর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেভল্যুশন হবে ডিজিটাল বিপ্লব। এ বিপ্লবের প্রধান হাতিয়ার তথ্যপ্রযুক্তি ও জ্ঞান। উন্নত বিশ্বের দেশগুলো শিল্প ও প্রযুক্তি খাতের আধুনিকায়নে এবং তার জন্য দক্ষ জনবল তৈরিতে মনোনিবেশ করছে। বাংলাদেশকেও প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকার প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে এখনই।

উল্লেখ্য, এ প্রতিযোগিতায় দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় শতাধিক দল অংশগ্রহণ করে। যাচাই–বাছাই শেষে ৩০টি দলকে তাদের প্রজেক্ট উপস্থাপনের জন্য প্রস্তুত করতে দেওয়া হয় আর্থিক অনুদান। তার মধ্য থেকে সেরা তিনটি দলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। শিক্ষার্থীরা দলগতভাবে ক্ষুধা, দারিদ্র্য, পয়োনিষ্কাষণ, বিশুদ্ধ পানির অভাব, জলবায়ু সমস্যা সমাধান, শিল্পায়ন, পরিকল্পিত নগরায়ণ, অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে তাঁদের উদ্ভাবনী আইডিয়া উপস্থাপন করেন। দেশের স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষকরা পুরো আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত থেকে শিক্ষার্থীদের সহায়তা করেন।

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন