default-image

করোনা পরিস্থিতির কারণে দেশের অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতোই গত বছরের মার্চের মাঝামাঝি থেকে বন্ধ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম। প্রায় এক বছর পর আগামী মার্চের প্রথম সপ্তাহে আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়ার কথা ভাবছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটি আজ মঙ্গলবার মার্চের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে হলগুলো খুলে দেওয়ার জন্য প্রস্তুত করার সুপারিশ করেছে। তবে শুরুতে শুধু স্নাতক শেষ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীদের জন্য হল খোলা হতে পারে।

আজ সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের বাসভবনে প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির এই সভা হয়। উপাচার্যের সভাপতিত্বে সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮টি হলের প্রাধ্যক্ষরা ছাড়াও সহ-উপাচার্য (শিক্ষা) এ এস এম মাকসুদ কামাল, কোষাধ্যক্ষ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে রাত আটটার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যসচিব এ কে এম গোলাম রব্বানীর সঙ্গে কথা হয় প্রথম আলোর। তিনি বলেন, স্নাতক শেষ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের যেসব শিক্ষার্থীর হলের আবাসিকতা আছে, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তাঁদের পরীক্ষা নেওয়ার জন্য মার্চের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে আবাসিক হলগুলোকে প্রস্তুত করার সুপারিশ করা হয়েছে। একাডেমিক কাউন্সিল ও সিন্ডিকেটে আলোচনার পর এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।

বিজ্ঞাপন

প্রক্টর আরও জানান, ৩১ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের বিশেষ সভা রয়েছে। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করার সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হলে গত বছরের ২০ মার্চ আবাসিক হলগুলো খালি করে দেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এরপর গত জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহ থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু হলেও চূড়ান্ত পরীক্ষাগুলো আটকে আছে। গত মাসে হুট করে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করলে স্নাতক শেষ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীরা সীমিত পরিসরে হলগুলো খুলে দেওয়ার দাবিতে সোচ্চার হন। এমন প্রেক্ষাপটে মার্চের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে হল খোলার সুপারিশ করল প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটি।

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন