default-image

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা অবশ্যই নেওয়া উচিত। এ বছর যেহেতু এইচএসসি পরীক্ষা হয়নি, তাই ভর্তি পরীক্ষা নেওয়াটা জরুরি। তবে পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কোনো অবস্থায় শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি নেওয়া যাবে না।
গুচ্ছ ভিত্তিক বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য মীজানুর রহমান আজ শুক্রবার প্রথম আলোকে এ কথা বলেন।
উপাচার্য বলেন, প্রতিবছর মেডিকেল পরীক্ষা সমন্বিতভাবে হয়। অনেকটা সেভাবে করোনা সংকটে শুধু এমসিকিউ পদ্ধতিতে হলেও একটি পরীক্ষা নেওয়া নেওয়া উচিত। কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ের মানের সঙ্গে এ বিষয়টি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। করোনা সংক্রমণে এ বছর অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। প্রতিবছরের থেকে এ বছর সর্বোচ্চসংখ্যক শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ। সবার পরীক্ষা নেওয়া অনেক বড় কর্ম যজ্ঞ। আবার পরীক্ষা না নিলে সকল শিক্ষার্থী কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল, ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে চাইবে। যা নির্ধারণ করার জন্যও পরীক্ষা নিতে হবে।
এদিকে করোনা সংক্রমণের কারণে এবার সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি পরীক্ষা কীভাবে হবে, তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আগামীকাল শনিবার উপাচার্যদের সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের সভা বসবে। ওই সভার সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি)।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে উপাচার্য মীজানুর রহমান বলেন, সভায় উপস্থাপন করা হবে কিভাবে বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিতে পারি। এ ছাড়াও অন্যান্য দেশে কিভাবে সমন্বিতভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি নেওয়া হয়, তার পর্যালোচনা করা হবে। তবে সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সবকিছুর ঊর্ধ্বে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা গুরুত্ব পাবে। কোনো অবস্থায় স্বাস্থ্য ঝুঁকি নেওয়া হবে না।
বর্তমানে দেশে ৪৬টি সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয় থাকলেও ৩৯টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়। এর আগে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতেই সিদ্ধান্ত হয় চারটি স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাকা, জাহাঙ্গীরনগর, রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়) ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে তিনটি গুচ্ছ করে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে। এর মধ্যে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিয়ে একটি, সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিয়ে আরেকটি এবং প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিয়ে আরেকটি গুচ্ছ করে এই ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0