মো. বেলায়েত শেখ পরীক্ষায় এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলের নম্বরসহ মোট ২৬ নম্বর পেয়েছেন৷ এ কারণে তাঁর স্বপ্ন অপূর্ণই থেকে গেল৷

ফল প্রকাশের পর যোগাযোগ করা হলে প্রথম আলোকে নিজের ভর্তি পরীক্ষার রোল নম্বর এবং এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার রোল নম্বর দেন৷ পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী মুঠোফোন থেকে এসএমএস পাঠিয়ে তাঁর ফলাফল পাওয়া যায়৷ সেখানে দেখা যায়, ভর্তি পরীক্ষায় বেলায়েত উত্তীর্ণ হতে পারেননি৷ তাঁর মোট প্রাপ্ত নম্বর ২৬ দশমিক শূন্য ২৷ ফলাফলে তাঁকে অনুত্তীর্ণ দেখানো হয়েছে৷

বেলায়েত প্রথম আলোকে বলেন, তিনি পরীক্ষার বহুনির্বাচনী অংশের ৬০টি প্রশ্নের মধ্যে ৪৫টির উত্তর দিয়েছিলেন৷ এর মধ্যে ২৪টি প্রশ্ন তাঁর কমন পড়েছিল৷ বাকিগুলোর উত্তর দিয়েছেন আন্দাজের ওপর৷ লিখিত অংশের বিষয়ে অবশ্য সুনির্দিষ্ট কিছু মনে নেই তাঁর৷

বেলায়েত শেখ গাজীপুরের মাওনার বাসিন্দা৷ ৫৫ বছর বয়সী এই ব্যক্তি অদম্য ইচ্ছাশক্তির ওপর ভর করে নিজের স্বপ্নপূরণে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন৷ বেলায়েত শেখ ১৯৮৩ সালে মাধ্যমিক (এসএসসি) পরীক্ষার্থী ছিলেন। কিন্তু বাবার অসুস্থতার কারণে পড়াশোনা ছেড়ে তিনি পরিবারের হাল ধরেন৷ এ কারণে তাঁকে উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন জলাঞ্জলি দিতে হয়৷

পরে নিজের অসমাপ্ত স্বপ্নপূরণে ভাই ও সন্তানদের উচ্চশিক্ষিত করার চেষ্টা করেন বেলায়েত শেখ৷ কিন্তু তাঁদের কেউই তাতে সফল হননি৷ শেষ পর্যন্ত ৫০ বছরে পা দিয়ে বেলায়েত শেখ নিজেই ভর্তি হন নবম শ্রেণিতে। এরপর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে (এইচএসসি) উত্তীর্ণ হওয়ার পর ৫৫ বছর বয়সে এবার তিনি অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায়৷

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন