বিজ্ঞাপন

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. নুর-ই-ইসলাম স্বাক্ষরিত আরেকটি অফিস আদেশে রুটিন দায়িত্ব নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, রুটিন উপাচার্যের দায়িত্ব পালনকালে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভা, ফাইন্যান্স কমিটির সভা, একাডেমিক কাউন্সিল, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কমিটির সভা এবং শিক্ষার্থীদের মূল সনদে স্বাক্ষর করতে পারবেন।

এর আগে ১৩ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলাম। গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় তিনি এ পদের দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

সুলতান-উল-ইসলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকসমাজ’ ব্যানারে আন্দোলনকারীদের আহ্বায়ক ছিলেন। গত ৬ মে পুলিশি পাহারায় ক্যাম্পাস থেকে বিদায় নেওয়া উপাচার্য আবদুস সোবহানসহ তাঁর প্রশাসনের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি ও নিয়োগ–বাণিজ্য বিষয়ে আন্দোলনে বেশ তৎপর ছিলেন তিনি এবং তাঁর নেতৃত্বে থাকা আন্দোলনকারীরা।

গত ৬ মে সাবেক উপাচার্য আবদুস সোবহানের মেয়াদ শেষ হলে সেদিনই রুটিন উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পান সহ-উপাচার্য আনন্দ কুমার সাহা। ১৬ জুলাই তাঁর সহ-উপাচার্যের মেয়াদ শেষ হওয়ায় উপাচার্যের রুটিন দায়িত্ব পালনও শেষ হয়। এরপরই মূল উপাচার্য শূন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে আবারও একজন রুটিন দায়িত্ব উপাচার্যের দায়িত্ব পেলেন।

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন