default-image

স্মার্টফোনের দুনিয়ায় গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ওএস আধিপত্য করছে। যুক্তরাষ্ট্রের চাপে থাকা চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে এবারে স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেমের দুনিয়ায় নাড়া দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে।

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়া হুয়াওয়ে তাদের স্মার্টফোনে গুগলের সেবা ব্যবহারের সুযোগ পাচ্ছে না। তাই তারা গত বছরেই হারমনি ওএসের সঙ্গে বিশ্বকে পরিচয় করিয়ে দেয়।

এখন হুয়াওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা প্রস্তুত। আগামী বছরই হারমনি ওএস চালিত স্মার্টফোন বাজারে আসতে পারে। বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট অ্যান্ড্রয়েড পুলিশ জানিয়েছে, গত বছর হারমনি ওএস উদ্বোধন করা হলেও শুরুতে এটি স্মার্টফোন ব্যবহারের পরিকল্পনা ছিল না। তবে এরপর থেকে মার্কিন চাপে পড়ে হুয়াওয়ে তাদের অপারেটিং সিস্টেমে ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে।

এ পরিবর্তন শুধু কোডে নয়। হুয়াওয়ে তাদের পরিকল্পনাতেও ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে এসেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার চীনে এক অনুষ্ঠানে হারমনি ওএসের পরবর্তী প্রজন্মের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে চীনা প্রতিষ্ঠানটি। তারা বলছে, স্মার্টফোনের দুনিয়ায় নতুন ওএস হিসেবে হারমনিকে প্রস্তুত করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

হুয়াওয়ের কনজ্যুমার ব্যবসার প্রধান নির্বাহী রিচার্ড ইউ বলেন, হারমনি ওএস ২.০ নামের ওএস সার্বক পরিস্থিতিতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহারের সহজ সমাধান হাজির করতে পারে। শেনঝনের ওই অনুষ্ঠানে তিনি তাঁর উপস্থাপনায় বিষয়টি তুলে ধরেন।

চীন সরকারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা নিয়ে আন্তর্জাতিক উদ্বেগ থাকলেও হুয়াওয়ে দাবি করেছে, তাদের হারমনি ২.০ হবে নিরাপদ অপারেটিং সিস্টেম।

বিজ্ঞাপন

হুয়াওয়ের কর্মকর্তারা বলেন, নতুন অপারেটিং সিস্টেমে টিভি থেকে স্মার্টওয়াচ—সব সমর্থন করবে। তাঁরা ডেভেলপারদের জন্য সহজ ফ্রেমওয়ার্ক তৈরি করছেন, যাতে সহজে অ্যাপ চালানো যাবে।

এ ছাড়া তাঁদের অপারেটিং সিস্টেমের একটি উন্মুক্ত বা ওপেন সোর্স সংস্করণ থাকবে। এর নাম হবে ওপেন হারমনি। এটি এখন কেবল ১২৮ এমবির কম র‍্যামযুক্ত ডিভাইস সমর্থন করে। আরও শক্তিশালী ডিভাইস–সমর্থিত অপারেটিং সিস্টেম পরে আসবে।

হারমনি ওএসের পরীক্ষামূলক সংস্করণ (বিটা ভার্সন) গতকাল থেকেই টিভি, স্মার্টওয়াচ, গাড়িতে ব্যবহারের জন্য ছাড়া হয়েছে। এ বছরের শেষ নাগাদ এটি স্মার্টফোনে কীভাবে কাজ করে, তা দেখা যাবে।

মন্তব্য পড়ুন 0