আইফোন নাকি স্যামসাংয়ের ব্যবহার বেশি?

বিজ্ঞাপন
default-image

গড়ে একটি আইফোন ১৮ মাস ব্যবহার করা হয়। আর স্যামসাং গ্যালাক্সি স্মার্টফোন ব্যবহার করা হয় সাড়ে ১৬ মাস। আর মার্কিনদের মধ্যে স্মার্টফোন ব্যবহারের গড় মেয়াদ ৩৩ মাস। গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্ট্র্যাটেজি অ্যানালিটিকসের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, মূলত দাম বাড়ার কারণেই এক স্মার্টফোন দীর্ঘদিন ব্যবহার করছেন মার্কিনরা।

বছর পাঁচেক আগে মার্কিনরা গড়ে প্রতি ১৯ মাসে একবার করে স্মার্টফোন বদলাতেন। এখন সে সময় ৩৩ মাস হওয়ার পেছনে উদাহরণ হিসেবে অ্যাপলের তৈরি স্মার্টফোন আইফোনের দামের উল্লেখ করা যেতে পারে। ২০১৭ সালে আইফোন টেন বাজারে ছাড়ার সময় প্রথমবারের মতো আইফোনের বাজারমূল্য হাজার ডলার ছাড়িয়ে যায়। এরপর আর তা নিম্নমুখী হয়নি। ভবিষ্যতেও সে সম্ভাবনা কম।

স্ট্র্যাটেজি অ্যানালিটিকসের গ্লোবাল স্মার্টফোন স্ট্র্যাটেজিস বিভাগের পরিচালক লিন্ডা সুই একই স্মার্টফোন ব্যবহারের মেয়াদ বাড়ার পেছনে তিনটি কারণ উল্লেখ করেন।

নিজেদের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করলে স্মার্টফোনে ভর্তুকি দিত মার্কিন মুঠোফোন নেটওয়ার্ক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। ২০১৩-১৪ সাল থেকে সে ধারা কমতে থাকে।

একদিকে দাম বেড়েছে, অন্যদিকে উন্নত হয়েছে স্মার্টফোনের মান। এটাও একটা কারণ।

স্মার্টফোনের উদ্ভাবনী দিক দিন দিন কমছে। যান্ত্রিক বা সফটওয়্যারের দিক থেকেও সাম্প্রতিক সময়ে তেমন চমৎকার কিছু দেখা যায়নি।

১৮ থেকে ৬৪ বছর বয়সী আড়াই হাজার স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর ওপর জরিপ চালিয়ে আরও জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের স্মার্টফোন ব্যবহারকারী বেশি। গ্রাহকদের মধ্যে এই দুটি ব্র্যান্ডের প্রতি আনুগত্যও সর্বাধিক—৭০ শতাংশের বেশি। এলজি এবং মটোরোলাসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের স্মার্টফোন পরপর কেনার হার ৫০ শতাংশের নিচে।

নতুন স্মার্টফোন কেনার পেছনে ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক এখন পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারেনি। সূত্র: ফোর্বস

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন