বিজ্ঞাপন

আজ শনিবার সকালে প্রযুক্তি সাংবাদিকদের সংগঠন টেকনোলজি মিডিয়া গিল্ড বাংলাদেশ-টিএমজিবি আয়োজিত এক ওয়েবিনারে টেলিযোগাযোগমন্ত্রী এসব কথা জানান। ‘প্রযুক্তিতে বাংলা: চাওয়া, পাওয়া ও আকাঙ্ক্ষা’ শীর্ষক এই অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এপনিকের নির্বাহী কমিটিতে নির্বাচিত প্রথম বাংলাদেশি প্রযুক্তিবিদ সুমন আহম্মেদ সাবির। এ ছাড়া জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান সোনিয়া বশির কবির, দেশের প্রযুক্তি খাতের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ চার সংগঠন বেসিস, বিসিএস, আইএসপিএবি এবং বাক্যের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ওয়েবিনারে বক্তব্য দেন।

ওয়েবিনারে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ইন্টারনেটে বাংলার ব্যবহার বাড়াতে এবং বাংলাকে আধিপত্যশীল ভাষা হিসেবে স্থান করে দিতে ১৬টি টুলস উন্নয়ন করছে সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ। এই প্রকল্পের কাজ শেষ হলে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে বাংলাকে স্বীকৃতি দেওয়ার কাজ সহজ হবে। এ ছাড়া মুঠোফোনে খুদে বার্তা পাঠানোর ক্ষেত্রে বাংলা বর্ণ এত দিন যে বৈষম্যের শিকার হয়েছে, আজ রাত থেকে তার অবসান ঘটছে বলেও জানান তিনি।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মুঠোফোনে বাংলা এসএমএস বা খুদে বার্তার খরচ অর্ধেকে নামিয়ে আনা হয়েছে। গ্রামীণফোন ও টেলিটকের গ্রাহকেরা আজ থেকে এ সুবিধা পাবেন। রবি ১৫ মার্চ ও বাংলালিংকের গ্রাহকেরা ৩১ মার্চ থেকে এ সুবিধার আওতায় আসবেন। ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রীর দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

আজ শনিবার রাজধানীর বিটিআরসি ভবন মিলনায়তনে বিটিআরসি, অ্যামটব এবং মোবাইল অপারেটরদের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে অর্ধেক খরচে বাংলা এসএমএস কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন, গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী ইয়াসির আজমান প্রমুখ।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন