বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ ২ জানুযারি ঢাকার একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। এ সময় মেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান মেকার কমিউনিকেশনের প্রধান নির্বাহী মুহম্মদ খান বলেন, ‘করোনার কারণে আড়াই বছর পরে আমরা এই মেলার আয়োজন করছি। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা চলবে। তবে শুক্র ও শনিবার মেলায় বেশি দর্শক হয়। এ জন্য আমরা ছুটির দিনে মেলার সময় ১ ঘণ্টা বাড়াতে পারি। মেলায় দর্শকেরা বিনা মূল্যে প্রবেশ করতে পারবেন। তবে প্রতিবারের মতো আমরা মেলা শেষে দুস্থদের আর্থিক সহায়তা দেব।’

সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকদের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, ফাইভ–জি প্রযুক্তির পাশাপাশি স্যামসাং, অপ্পো, রিয়েলমি, শাওমি, টেকনো, ভিভো, ওয়ালটন, ওয়ান প্লাসসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সর্বশেষ মডেলের স্মার্টফোন ও ট্যাব পরখ করে দেখার সুযোগ মিলবে এই মেলায়। এ ছাড়া স্মার্টফোনের জন্য সহায়ক যন্ত্র ও উপকরণও পাওয়া যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে টেলিটকের সহকারী ব্যবস্থাপক মো. আবু হাসান মাসুদ বলেন, ফাইভ–জি প্রযুক্তি কীভাবে কাজ করে, তা মেলায় দর্শকদের পরখ করার সুযোগ দেবে টেলিটক। স্যামসাং মোবাইলের পণ্য পরিকল্পনা প্রধান ফজলুল মুসাইর চৌধুরী বলেন, প্রতিবছরের মতো এবারও মেলায় স্যামসাং বিভিন্ন পণ্যে ছাড় ও উপহার দেবে। নতুন পণ্যও উন্মোচন করবে। ট্রানশন বাংলাদেশের বিপণন বিভাগের প্রধান মো. আসাদুজ্জামান বলেন, টেকনো পণ্যে ক্রেতাদের জন্য বিভিন্ন ছাড় ও উপহার থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন অপ্পো বাংলাদেশের বিপণন বিভাগের প্রধান লিউ ফ্যাং, ভিভো বাংলাদেশের ব্র্যান্ড ব্যবস্থাপক তানজিব আহম্মেদ, রিয়েলমি বাংলাদেশের বিক্রয় প্রধান মুজিহিদুল ইসলাম, ডিএক্স গ্রুপের হেড অব রিটেইল অপারেশন জে এম হাসান সাইফ এবং হুয়াওয়ে টেকনোলজিস বাংলাদেশ লিমিটেডের পাবলিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন প্রধান ইউ ওয়াইং।

মেলায় পৃষ্ঠপোষকতা করছে স্যামসাং, অপো, ভিভো, রিয়েলমি, টেকনো ও ডিএক্স এবং অংশীদার সহযোগী ‘ইকুরিয়ার’।

আয়োজকেরা জানিয়েছেন, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মাস্ক না পরা অবস্থায় বা শরীরের তাপমাত্রা বেশি থাকলে কেউ মেলায় প্রবেশ করতে পারবেন না। এ জন্য প্রবেশপথে দর্শনার্থীদের তাপমাত্রাও পরীক্ষা করা হবে।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন