default-image

কোনো আক্রান্ত ব্যক্তি কথা বলা বা শ্বাস-প্রশ্বাস কিংবা কাশি দেওয়ার সময় করোনাভাইরাস ড্রপলেটের মাধ্যমে ছড়ায়—বিজ্ঞানীরা এটা জানেন। কিন্তু এই ড্রপলেটে নিজের বংশবিস্তারের ক্ষমতা আছে কি না, এটা জানা ছিল না। নতুন এক গবেষণায় বলা হয়েছে, পরীক্ষাগারের পরিবেশে এই ড্রপলেটেও নিজের বৃদ্ধি ঘটাতে পারে করোনাভাইরাস।

নতুন এই গবেষণা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নেব্রাস্কা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। তাঁদের এই গবেষণার পিআর রিভিউ এখনো সম্পন্ন হয়নি। তবে তার আগেই যুক্তরাষ্ট্রের অলাভজনক গবেষণা প্রকল্প কোল্ড স্প্রিং হারবার ল্যাবরেটরির ওয়েবসাইট মেড আর্কাইভে প্রকাশ করা হয়েছে। করোনাভাইরাসের মহামারি শুরুর পর বিভিন্ন গবেষণা এখানে প্রকাশিত হয়েছে। নতুন এই গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, পাঁচ মাইক্রন ড্রপলেটে এই ভাইরাস নিজদের বংশবিস্তার করে। এ থেকে বিজ্ঞানীদের অনুমান আরও স্পষ্ট হচ্ছে, শুধু কফ কিংবা কাশির মধ্য দিয়ে করোনাভাইরাস ছড়ায় না। কথা বলা কিংবা শ্বাস–প্রশ্বাসের সময়ও ড্রপলেটের মধ্য দিয়ে এই ভাইরাস ছড়াতে পারে। এ ছাড়া ছয় ফুটের বেশি দূর পর্যন্ত ভেসে যেতে পারে এই ভাইরাস। অর্থাৎ সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার ক্ষেত্রে যে দূরত্ব নির্ধারণ করা হয়েছে, তার থেকে বেশি দূরত্ব পর্যন্ত বাতাসের মধ্য দিয়ে অতিক্রম করতে পারে এই ভাইরাস। যদিও এই গবেষণা ফলাফলকে এখনো প্রাথমিক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

এই দলটি করোনার বিস্তার নিয়ে এর আগেও একটি গবেষণা করেছে। ওই গবেষণায় বলা হয়েছিল, রোগী যেই কক্ষে রয়েছেন, সেই কক্ষে এই ভাইরাস বাতাসের মধ্য দিয়ে ছড়াতে পারে। গবেষণা দলের প্রধান জানিয়েছেন, শিগগিরই এই গবেষণা একটি সাময়িকীতে প্রকাশ হবে। এ প্রসঙ্গে নেব্রাস্কা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক জোশুয়া সানতারপিয়া বলেন, এই ধরনের গবেষণার জন্য নমুনা সংগ্রহ ভয়ংকর কঠিন কাজ। এ জন্য মুঠোফোন আকৃতির একটি যন্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন