default-image

এখনকার দিনে কাশি শুনলে একটু দুশ্চিন্তা হওয়ারই কথা। কোভিড-১৯–এর উপসর্গ হিসেবে কাশি থাকতে পারে। কিন্তু এ কাশি শুনেই কি করোনা শনাক্ত করা যায়? শিগগিরই এর উত্তর জানা যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) গবেষকেরা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তানির্ভর (আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স বা এআই) প্রোগ্রাম তৈরি করেছেন, যা করোনায় সংক্রমিত রোগীর কাশি শনাক্ত করতে সক্ষম। কেউ যদি উপসর্গহীন রোগীও থাকেন, তবে তাঁর কাশি শুনেও এ প্রোগ্রামের মাধ্যমে করোনা শনাক্ত করা সম্ভব।

বিজ্ঞাপন

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চ জানিয়েছে, গবেষকেরা এআইভিত্তিক প্রোগ্রাম তৈরিতে একাধিক নিউরাল নেটওয়ার্ক ব্যবহার করেছেন। প্রোগ্রামে গবেষকেরা একটি নিউরাল নেটওয়ার্ক ব্যবহার করেছেন, যা কণ্ঠস্বরের শক্তিমত্তার সঙ্গে সম্পর্কিত। আরেকটি নিউরাল নেটওয়ার্ক স্নায়ুতান্ত্রিক পরিবর্তন শনাক্ত করতে পারে। তৃতীয় আরেকটি নেটওয়ার্ক শ্বাসতন্ত্রের পারফরম্যান্স বিবেচনা করতে পারে। এসব বিশেষ অ্যালগরিদমে ফেলে কারও স্বাস্থ্য–সম্পর্কিত পূর্ণ চিত্র পাওয়া সম্ভব বলে মনে করছেন গবেষকেরা।

গবেষণাসংক্রান্ত নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে ‘আইট্রিপলই ওপেন জার্নাল অব ইঞ্জিনিয়ারিং ইন মেডিসিন অ্যান্ড বায়োলজি’ সাময়িকীতে।

গবেষকেরা দাবি করেছেন, প্রাথমিক পরীক্ষায় তাঁদের তৈরি এআই প্রোগ্রাম নিখুঁত ফলাফল দেখিয়েছে। গবেষকেরা তাঁদের তৈরি মডেলটিকে হাজারো কাশি ও কথোপকথনের নমুনা শিখিয়েছেন। এ প্রযুক্তি এখন সাড়ে ৯৮ শতাংশ ক্ষেত্রে কোভিড রোগীর কাশি শুনে তা শনাক্ত করতে পারে। উপসর্গহীন রোগী শনাক্তে শতভাগ সফল হয়েছে এআই মডেলটি।

অবশ্য গবেষকেরা বলছেন, এই প্রযুক্তির কিছু সীমাবদ্ধতাও আছে। প্রযুক্তিটি লক্ষণগত রোগীদের জন্য রোগ শনাক্তের ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য নয়।

গবেষকেরা এ প্রযুক্তি ব্যবহারের উপযোগী করতে ব্যবহারবান্ধব একটি অ্যাপ তৈরি করছেন, যা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরীক্ষার আগে প্রাথমিক শনাক্তের কাজে ব্যবহার করা যেতে পারে। এ পদ্ধতিতে করোনা পরীক্ষা করতে স্মার্টফোনের অ্যাপটি চালু করে কাশি শোনাতে হবে। এতে বাইরে যাওয়া ঠিক হবে কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যাবে।

মন্তব্য পড়ুন 0