বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাজ্যের ডিজিটাল অবকাঠামোবিষয়ক মন্ত্রী ম্যাট ওয়ারম্যান বলেছেন, পৌঁছানো কঠিন এমন এলাকাগুলোতে ভালো ব্রডব্যান্ড সংযোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য সবচেয়ে বড় বাধা হলো রাস্তা ও মাটি খোঁড়ার খরচ। তবে আমাদের পায়ের নিচে পানির পাইপের বিশাল নেটওয়ার্ক দেশের প্রায় সব বাড়িতেই পৌঁছেছে। এতে একসঙ্গে দুটো কাজই হবে। একদিকে সুপেয় পানি সরবরাহ হবে, আবার দ্রুতগতির ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া যাবে।

প্রকল্প বাস্তবায়নে টেলিযোগাযোগ, ইউটিলিটি সরবরাহকারী এবং প্রকৌশল প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের নিয়ে কনসোর্টিয়াম গঠন করা হবে। ৪ অক্টোবরের মধ্যে প্রতিষ্ঠানগুলোকে আবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। তবে যেকোনো আবেদন যুক্তরাজ্যের ড্রিঙ্কিং ওয়াটার ইন্সপেক্টরেটের দপ্তর থেকে অনুমোদন পেতে হবে।

যুক্তরাজ্যের ৯৬ শতাংশের বেশি অঞ্চলে এরই মধ্যে দ্রুতগতির ইন্টারনেট সংযোগ পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সরকারের হিসাব অনুযায়ী, এই সংযোগগুলোতে ডাউনলোডের গতি সেকেন্ডে অন্তত ২৪ মেগাবাইট (এমবিপিএস)। আর এর চেয়ে বেশি গতির ইন্টারনেট সংযোগ আছে যুক্তরাজ্যের ১২ শতাংশ অঞ্চলে।

স্পেনসহ বেশ কিছু দেশে এরই মধ্যে পানির লাইনে ইন্টারনেট কেবল যুক্ত করা হয়েছে।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন