বিজ্ঞাপন

বিভিন্ন ব্যক্তির পাশাপাশি সংগঠনও রোজিনা ইসলামের পক্ষে তাদের অবস্থান তুলে ধরে হ্যাশট্যাগ রোজিনা ইসলাম ব্যবহার করছে। অনেকেই বিভিন্ন সংগঠনের বিবৃতি তুলে ধরছেন। কেউ কেউ বিভিন্ন খবরের লিংক শেয়ার করে এ হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করছেন। রোজিনা ইসলামের মুক্তি দাবি করছেন তাঁরা।

টুইটারের অ্যালগরিদম মূলত এ ট্রেন্ড নির্ধারণ করে থাকে। ব্যবহারকারীর যোগাযোগ, আগ্রহ ও অবস্থান অনুসারে অ্যালগরিদম এ ট্রেন্ড নির্ধারণ করতে পারে। আজকের এ ট্রেন্ডে দেশের আলোচিত ঘটনা হিসেবে অনেকেই রোজিনা ইসলামকে ঘিরে প্রকাশিত বিভিন্ন খবর শেয়ার করছেন। তাই হ্যাশট্যাগ রোজিনা ইসলাম এখন টুইটারে ট্রেন্ড হিসেবে উঠে এসেছে।

পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য গত সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে সেখানে প্রায় ছয় ঘণ্টা আটকে রেখে হেনস্তা করা হয়। একপর্যায়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা হয়েছে। তাঁকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের করা ওই মামলায় রোজিনা ইসলামের জামিন আবেদনের ওপর শুনানি হয়েছে বৃহস্পতিবার। তাঁর জামিনের বিষয়ে আদেশের জন্য রোববার দিন রেখেছেন আদালত।

রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে সোচ্চার রয়েছেন সাংবাদিক, শিক্ষক, লেখক, সাংস্কৃতিক কর্মীসহ সব পেশার মানুষ। জাতিসংঘও রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন এবং সাংবাদিকদের অধিকার রক্ষায় সোচ্চার বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকেও উদ্বেগ জানিয়ে অবিলম্বে রোজিনা ইসলামের মুক্তি দাবি করা হয়েছে।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন