বিজ্ঞাপন

যেভাবে আবেদন করবেন

বিশ্বের নানা দেশে পর্যায়ক্রমে ভেরিফিকেশনের আবেদন গ্রহণ শুরু হবে। আপনার অ্যাকাউন্টের জন্য সে সুবিধা চালু হলে ‘অ্যাকাউন্ট সেটিংস’ ট্যাবে তা পাবেন। আর না পেলে আগামী ‘কয়েক সপ্তাহের মধ্যে’ দেখা যাবে বলে জানিয়েছে টুইটার।

আবেদনপ্রক্রিয়া সহজ। পর্দায় দেখানো নির্দেশনা মানলেই চলবে। একবার আবেদন হয়ে গেলে কয়েক দিনের মধ্যে জবাব জানাবে টুইটার। তবে আবেদনের পরিমাণ বেশি হলে কয়েক সপ্তাহ লেগে যেতে পারে। কোনো আবেদনই স্বয়ংক্রিয়ভাবে হবে না। বরং প্রক্রিয়ার প্রতিটি ধাপে যুক্ত থাকবে মানুষ।

ভেরিফিকেশনের জন্য অনুমোদিত হলে প্রোফাইলে নীল রঙের ব্যাজ দেখাবে। আর টুইটার যদি অনুমোদন না দেয় এবং আপনি নিজেকে ভেরিফায়েড হওয়ার যোগ্য মনে করেন, তবে ৩০ দিন পর পুনরায় আবেদন করতে পারবেন।

যাঁদের অ্যাকাউন্ট এরই মধ্যে ভেরিফায়েড হয়েছে, তাঁদের আর নতুন করে আবেদনের প্রয়োজন নেই।

‘হাই প্রোফাইল’ মানুষদের জন্য ২০০৯ সালে টুইটারে চালু হয় ভেরিফিকেশন কর্মসূচি। কেউ যেন তাঁদের নামে ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে মানুষকে বিভ্রান্ত করতে না পারেন, সেটাই ছিল উদ্দেশ্য। তবে ২০১৬ সালে গণ–আবেদন গ্রহণ শুরু করলে অনেক ‘অযোগ্য’ অ্যাকাউন্ট ভেরিফায়েড হয়ে যায় বলে ২০১৭ সালের নভেম্বরে সে সুবিধা বন্ধ করে দেয় টুইটার। তবে বিখ্যাত ব্যক্তিদের বেলায় ম্যানুয়াল ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া চালু রাখে। বন্ধ হওয়ার চার বছর পর আবার সে সুবিধা চালুর ঘোষণা দিল টুইটার।

সূত্র: দ্য ভার্জ

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন