default-image

তথ্যপ্রযুক্তিতে নারীর অবদান উদ্‌যাপন করার লক্ষ্যে ২৯ ও ৩০ জানুয়ারি দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে অ্যাডা লাভলেস সেলিব্রেশন ২০২১। কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ের প্রবর্তক অ্যাডা লাভলেসের নামে আয়োজিত এ উৎসবের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে চার দিনব্যাপী ডেটাথন কর্মশালার মধ্য দিয়ে। কর্মশালাগুলো যৌথভাবে আয়োজন করছে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) এবং HerWILL।
বিগত বছরের মতো এ বছরও তথ্যপ্রযুক্তিতে সফল নারীদের সঙ্গে নতুনদের নেটওয়ার্ক এবং আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার প্রস্তুতির লক্ষ্য নিয়ে অ্যাডা লাভলেস সেলিব্রেশন ২০২১-এর আয়োজন করছে বিডিওএসএন। এ বছর সহ-আয়োজক হিসেবে থাকছে HerWILL সংগঠন।  সংগঠনটি মূলত নারীদের মধ্যে সুপ্ত প্রতিভা অনুসন্ধান এবং লিঙ্গসমতার জন্য তাঁদের ক্ষমতায়নের বিষয়ে কাজ করে। এদিকে নারীকে তথ্যপ্রযুক্তিতে উদ্বুদ্ধকরণ ও দক্ষ করে তুলতে কাজ করে বিডিওএসএন।

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী—এমন নারী শিক্ষার্থীদের সংযুক্ত করা হবে এই আয়োজনে, যেখানে তাঁদের উৎসাহ দিতে দুদিনব্যাপী সেমিনার, ওয়ার্কশপ, অনলাইন সেশনে উপস্থিত থাকবেন তথ্যপ্রযুক্তি জগতের প্রতিষ্ঠিত নারী ব্যক্তিত্ব। এ ছাড়া HerWILL এবং বিডিওএসএনের যৌথ উদ্যোগে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হবে একটি ডেটাথন প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতার প্রস্তুতি হিসেবে চার দিনের সাজানো কর্মশালার তিনটি ইতিমধ্যে আয়োজিত হয়েছে ২, ৯ ও ১৬ জানুয়ারি। কর্মশালাগুলো পরিচালনা করছেন সৈয়দা তানযীম হক, অপারেশনাল লিড, হারউইল, ডেটা সায়েন্টিস্ট, চেক২৪, জার্মানি, ফিলিপ আঙ্গারার, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, সেলারিটিবায়ো, যুক্তরাষ্ট্র, ক্যারোলাইনা উওর্ফ, সায়েন্স ম্যানেজার, হেল্মহল্টজ, জার্মানি, সাব্বির আহমেদ, এইচসিআই গবেষক প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

কর্মশালাগুলোয় মূলত ডেটা সায়েন্সের খুঁটিনাটি নিয়ে আলোকপাত করা হয়। প্রথম কর্মশালাজুড়ে ডেটা সায়েন্সের পরিচিতি নিয়ে আলোচনা করা হয়। প্রতিনিয়ত আমরা ঠিক কত ধরনের ডেটা নিয়ে কাজ করে চলেছি, সে সম্পর্কে ধারণা দেওয়া ছিল এর উদ্দেশ্য। প্রাথমিক ধারণা প্রাপ্তির পরে দ্বিতীয় কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের শেখানো হয়, কীভাবে প্রযুক্তির মাধ্যমে এই বৃহৎ তথ্যভান্ডার নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। সেখানে শিক্ষার্থীরা বেশ কিছু টেকনিক্যাল শব্দ, যেমন: ডেটাগ্রিপ, পিজিএডমিন ইত্যাদির সঙ্গে পরিচিত হয়। নিয়ন্ত্রিত ডেটা থেকে কীভাবে সর্বাধিক ব্যবহারযোগ্য ডেটাসমগ্র বাছাই করা যাবে, সেই প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয় এই আয়োজনের তৃতীয় কর্মশালায়। আলোচনায় ডেটাবেইস নিয়ন্ত্রণের প্রযুক্তিগত দিকও ব্যাখ্যা করা হয়।

উৎসবের প্রস্তুতিমূলক আয়োজনেই যুক্ত হন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় ২৭৫ জন নারী শিক্ষার্থী। ২৩ জানুয়ারি কর্মশালার চতুর্থ আয়োজন অনুষ্ঠিত হবে। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন প্রায় ৩০০ জন নারী শিক্ষার্থী। সর্বোচ্চ পাঁচজন নারী সদস্যের দল গঠন করে প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া যাবে। ২৬ থেকে ২৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে এ আয়োজনের চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন দলকে ১৫ হাজার টাকা, প্রথম রানারআপ ১০ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় রানারআপকে ৫ হাজার টাকা সমমূল্যের পুরস্কার দেওয়া হবে। বিজ্ঞপ্তি

ডেটাথনের চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে ভিজিট করুন- https://forms.gle/Z1BVE7QvBt4CbFtX8
উৎসবের বিস্তারিত মিলবে- http://alc.bdosn.org/
ফেসবুক ইভেন্ট পেজ- https://www.facebook.com/events/991656231357176

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন