তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবসায়িক সম্পর্ক গড়ে ওঠার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। আছে প্রচুর সম্ভাবনাও। শুধু তথ্যপ্রযুক্তি নয়, সঠিক কর্মপরিকল্পনা ও নীতিনির্ধারণীর মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে সব ধরনের বাণিজ্যিক অংশীদারত্ব আরও জোরদার করা যেতে পারে। যেহেতু দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কও ভালো, প্রয়োজন পরিকল্পনাগুলোর গঠনমূলক উপস্থাপন।
গত রোববার ঢাকার ধানমন্ডিতে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) কার্যালয়ে ‘উইটসা ও বিসিএসের মধ্যে সহযোগিতা বাড়ানো: আইসিটি শিল্পের প্রসার’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে কথাগুলো বলেন দক্ষিণ আফ্রিকার আন্তর্জাতিক বিভাগের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি সার্ভিসেস অ্যালায়েন্সের (উইটসা) নির্বাহী পরিচালক রজার ল্যাচমান। বৈঠকটির আয়োজন করে বিসিএস।
বৈঠকে উইটসা গ্লোবাল ট্রেড কমিটির পরিচালক মো. সবুর খান বলেন, ‘বর্তমান সময়ের ব্যবসাপদ্ধতি অনেক উন্নত, মানসম্মত ও প্রযুক্তিনির্ভর। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে আমাদের রয়েছে হাজারো সম্ভাবনা। রয়েছে পর্যাপ্ত মানবসম্পদ। তাদের দক্ষ করে তুলতে পারলেই সাফল্য অর্জন করা সহজ হবে।’ বিসিএসের পরিচালক আলী আশফাক বলেন, বাংলাদেশে তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য উৎপাদন করা গেলে বহুমুখী কর্মক্ষেত্র সৃষ্টি হবে।
বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন অ্যাসোসিওর সদ্য সাবেক সভাপতি আবদুল্লাহ এইচ কাফী, বিসিএসের সহসভাপতি মজিবুর রহমান, ইপসিলন সিস্টেমস অ্যান্ড সলিউশন্স লিমিটেডের পরিচালক শহিদ-উল মুনীর, বিজনেস ল্যান্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফয়েজুল্লাহ খানসহ অনেকে। —রাফাত জামিল

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন