default-image

উত্তর আমেরিকার সঙ্গে সিঙ্গাপুর ও ইন্দোনেশিয়াকে যুক্ত করতে সাগরের তলদেশে দুটি ইন্টারনেট কেবল বসানোর পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে ফেসবুক। দুটি অঞ্চলের মধ্যে ইন্টারনেট সংযোগের গতি বৃদ্ধির জন্য গতকাল সোমবার দেওয়া ঘোষণায় ফেসবুকের সঙ্গে প্রকল্প–সহযোগী হিসেবে গুগল এবং স্থানীয় টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম উল্লেখ করা হয়।

ফেসবুকের নেটওয়ার্ক ইনভেস্টমেন্টসের ভাইস প্রেসিডেন্ট কেভিন সালভাদোরি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ইকো এবং বাইফ্রস্ট নামের ইন্টারনেট কেবল দুটি জাভা সমুদ্রের তলদেশের নতুন পথ ধরে এগোবে এবং আন্তপ্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ইন্টারনেট সংযোগের গতি প্রায় ৭০ শতাংশ বাড়াবে।

বিনিয়োগের পরিমাণ সম্পর্কে কিছু জানাননি কেভিন সালভাদোরি। তবে বলেছেন, ‘দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় আমাদের জন্য খুব বড় বিনিয়োগ।’

কেভিন সালভাদোরির মতে, উত্তর আমেরিকার সঙ্গে ইন্দোনেশিয়ার একাংশে এই প্রথম সরাসরি সংযোগ দেওয়া হচ্ছে। এতে ইন্দোনেশিয়ার মূল ভূখণ্ড এবং পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোয় ইন্টারনেট সংযোগের গতি বৃদ্ধি করবে।

সালভাদোরি বলেছেন, গুগল এবং ইন্দোনেশীয় টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান এক্সএল আজিয়াটার সঙ্গে যৌথভাবে স্থাপন করা হবে ইকো। ২০২৩ সালের মধ্যে সেটির কাজ শেষ হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

আর বাইফ্রস্ট স্থাপন করা হবে ইন্দোনেশিয়ার টেলকমের অধীনস্থ প্রতিষ্ঠান টেলিন এবং সিঙ্গাপুরের প্রতিষ্ঠান কেপ্পেলের সঙ্গে। সেটি ২০২৪ সালের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তবে দুটি কেবলই সে দেশগুলোর নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমতি পেলে তবেই স্থাপনের কাজ শুরু হবে।

ইন্দোনেশিয়ান ইন্টারনেট প্রোভাইডারস অ্যাসোসিয়েশনের ২০২০ সালে করা এক জরিপে দেখা যায়, ইন্দোনেশিয়ার মোট জনসংখ্যার ৭৩ শতাংশ ইন্টারনেটে যুক্ত। তবে সিংহভাগ যুক্ত হন মোবাইল ডেটা ব্যবহার করে। ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তাঁদের ১০ শতাংশেরও কম মানুষ।

ইন্দোনেশিয়ার ২০টি শহরজুড়ে ওয়াই-ফাই হটস্পটের পাশাপাশি ৩ হাজার কিলোমিটার ফাইবার কেবল বসানোর পরিকল্পনার কথা গত বছর জানিয়েছিল ফেসবুক।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পাশাপাশি বিশ্বজুড়ে এমন কেবল সংযোগ বসানোর পরিকল্পনা ফেসবুকের। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে হংকং, তাইওয়ান ও ফিলিপাইনকে যুক্ত করার জন্য ১২ হাজার ৮০০ কিলোমিটার দীর্ঘ কেবল বসানোর কথা ছিল ফেসবুক ও গুগলের। তবে হংকংয়ের সম্ভাব্য নজরদারির কথা ভেবে বেঁকে বসে মার্কিন সরকার।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন