default-image

আপনি কি আপনার অনলাইন অ্যাকাউন্টগুলোতে দুর্বল বা সহজে অনুমাণযোগ্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেন? সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা দ্রুত এ অভ্যাস ছাড়তে বলেছেন। সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান সিকিউর লিংকের সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, অ্যাকাউন্টে প্রায় ৮০ শতাংশ হ্যাকিং আক্রমণের ঘটনা পাসওয়ার্ড লঙ্ঘন সম্পর্কিত।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহারের ধারা চলমান রয়েছে। ২০১৭ সালের এক গবেষণায় দেখা গিয়েছিল তখন যে পরিমাণ পাসওয়ার্ড ভেঙে হ্যাকিংয়ের ঘটনা ঘটতো তার পরিমাণ এখনকার মতোই। অর্থাৎ, মানুষ এখনো দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহারের অভ্যাস ছাড়েনি।

গবেষণায় দেখা গেছে, ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর বিভিন্ন অ্যাকাউন্টের তথ্য হাতিয়ে নিতে ফিশিং আক্রমণকে সবচেয়ে পরিচিতি কৌশল হিসেবে ব্যবহার করে সাইবার দুর্বৃত্তরা। এতে লোভনীয় বা চটকদার কোনো কোনো তথ্য, খবর বা অফার দিয়ে ব্যবহারকারীকে ম্যালওয়্যারপূর্ণ একটি লিংকে ক্লিক করতে বলা হয়। ওই লিংকে নিবন্ধন করা বা বিভিন্ন কৌশলে পাসওয়ার্ড হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা।

সিকিউর লিংকের প্রতিবেদনে বলা হয়, হ্যাকারদের জন্য অ্যাকাউন্টে ঢোকা সহজ উপায় নয়, তবে অ্যাডমিন যদি বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে (পেশাদার এবং ব্যক্তিগতভাবে উভয়ই) অনন্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার না করেন তবে তাদের কাছে অ্যাকাউন্টের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চলে যাবে। সুরক্ষিত অ্যাক্সেস ম্যানেজমেন্টের প্রক্রিয়াটিকে অবহেলা করা ঠিক নয়।

প্রতিবেদনে আরও যোগ করা হয়েছে যে, লোকেরা তাদের সুরক্ষা ঝুঁকির মধ্যে রেখে পুরানো অভ্যাস জারি রেখেছে। এর মধ্যে কোথাও একটি পাসওয়ার্ড লিখে রাখা বা সহজেই অনুমান করা যায় এমন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার অভ্যাসও রয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের অ্যাকাউন্ট নিরাপদ করতে পরামর্শ হচ্ছে শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার, টু-ফ্যাক্টর-অথেনটিকেশন চালু করা ও অ্যাকাউন্ট একবার হ্যাক হলে অন্য অ্যাকাউন্টের সব পাসওয়ার্ড বদলে ফেলা। সব অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন