বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

করোনাকালে ঘরে থেকে অনলাইনে ক্লাস চালাতে শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপের চাহিদা বেড়ে যায়। দাম কম হওয়ায় শিক্ষার্থীরাও ক্রোমবুকে ঝুঁকতে শুরু করে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করলেও অনলাইন ক্লাসের রীতি এখনই বন্ধ হচ্ছে না। আর সে জন্যই শিক্ষার্থীদের সহজে ব্যবহারের জন্য এবং তাদের কথা মাথায় রেখে উইন্ডোজের সংস্করণটির ঘোষণা দিল মাইক্রোসফট।

সহজে ব্যবহার করার জন্য নতুন উইন্ডোজ ‘অপশন’ কম রাখছে মাইক্রোসফট। যেমন এক ঘরানার কেবল একটি অ্যাপ থাকবে। মনোযোগে ব্যাঘাত যেন না ঘটে, সে জন্য অ্যাপগুলো সচরাচর ফুলস্ক্রিন মোডে চালু হবে ইত্যাদি।

মাইক্রোসফট অফিস স্যুটের সফটওয়্যারগুলো এখন সাধারণত ইন্টারনেটে যুক্ত হয়ে ব্যবহার করতে হয়। তবে সব শিক্ষার্থীর বাড়িতে ভালো ইন্টারনেট সংযোগ না-ও থাকতে পারে। উইন্ডোজ ১১ এসইতে এই সফটওয়্যারগুলো অফলাইনে চালানো যাবে। ইন্টারনেটে যুক্ত হলে সেগুলো হালনাগাদ করে নেবে উইন্ডোজ। তা ছাড়া নিরাপত্তার জন্য উইন্ডোজ ১১ এসইতে চলা কম্পিউটারগুলোতে কেবল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আইটি অ্যাডমিনরা সফটওয়্যার ডাউনলোড ও ইনস্টল করতে পারবেন।

মাইক্রোসফটের নতুন সারফেস ল্যাপটপ এসইর প্রাথমিক মডেলটিতে ১১ দশমিক ৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে, ইনটেল সেলেরন প্রসেসর, ৪ গিগাবাইট র‍্যাম এবং ৬৪ গিগাবাইট স্টোরেজ আছে। দাম ২৪৯ ডলার।

default-image

বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য কেনা কম্পিউটারগুলোতেও আগে থেকে উইন্ডোজ ১১ এসই ইনস্টল করার পরিকল্পনা মাইক্রোসফটের। আর সে কারণে উইন্ডোজ ১১ এসই চালিত ডিভাইসগুলো বেশির ভাগ আগামী বছরের শুরুতে বাজারে আসা শুরু করবে। স্কুলগুলো সচরাচর সে সময়ে নতুন কেনাকাটার জন্য বাজেট নির্ধারণ করে থাকে।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন