default-image

তাৎক্ষণিক বার্তা আদান-প্রদানের প্ল্যাটফর্ম হোয়াটসঅ্যাপ আগামী বছর ব্যবহার বিধিমালায় পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে। হোয়াটসঅ্যাপে পরিবর্তনবিষয়ক তথ্য জানানোর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট ডব্লিউএবিটা ইনফো বলছে, আগামী বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে হোয়াটসঅ্যাপের নতুন নীতিমালা কার্যকর হতে পারে।

ডব্লিউএবিটা ইনফোর পক্ষ থেকে হোয়াটসঅ্যাপের ‘টার্মস অ্যান্ড প্রাইভেসি পলিসি আপডেটস’র স্ক্রিনশট দেখানো হয়েছে। এতে হোয়াটসঅ্যাপের যে শর্তগুলো দেখানো হচ্ছে, তা মূলত হোয়াটসঅ্যাপ যেভাবে ব্যবহারকারীর তথ্য সংগ্রহণ করবে, সে–সংশ্লিষ্ট বিষয়। এতে মূলত দুটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

একটি হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ কীভাবে ব্যবহারকারীর তথ্য প্রক্রিয়াজাত করবে, সে–সংক্রান্ত। আরেকটি হচ্ছে বিভিন্ন ব্যবসা কীভাবে ফেসবুকের বিভিন্ন সেবা তাদের স্টোরে যুক্ত করবে এবং চ্যাট ব্যবস্থাপনা করবে, সে–বিষয়ক নীতিমালা।

বিজ্ঞাপন

ফেসবুকের নীতিমালায় সম্মত হলে ‘অ্যাগ্রি’ চাপতে হবে। এতে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারের জন্য সব নীতিমালাতেই সম্মতি জানানো হয়ে যাবে। সব নীতিমালাতে সম্মত হলেই কেবল হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যাবে। যদি হোয়াটসঅ্যাপের পরিবর্তনে কেউ সম্মত না হন, তবে হোয়াটসঅ্যাপ সেটিংস থেকে অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলা যাবে।

সাধারণত ফিচার বা নীতিমালা পরিবর্তনসংক্রান্ত গুঞ্জন নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ মন্তব্য করে না। তবে যুক্তরাজ্যের দ্য ইনডিপেনডেন্টকে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ বলেছে, ২০২১ সালের ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সব হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীকে তাদের নীতিমালায় সম্মত হতে হবে, তা না হলে অ্যাপ ব্যবহার করা যাবে না।

ইনডিপেনডেন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হোয়াটসঅ্যাপের একজন মুখপাত্র বলেছেন, এ প্ল্যাটফর্মে যে পরিবর্তন আসছে তা মূলত এখানে কীভাবে ব্যবসা পরিচালনা করা যাবে এবং ব্যবহারকারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে, সে–সংক্রান্ত। গত অক্টোবর মাসে হোয়াটসঅ্যাপ তাদের পরিবর্তন বিষয়ে আগাম ধারণা দেয়।

মন্তব্য করুন