default-image

নতুন বেশ কিছু নিয়ম আনার পরিকল্পনা করেছিল ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপ। কিন্তু তা নিয়ে নানা সমালোচনা হয়। সমালোচনার মুখে এবার সিদ্ধান্ত বদল করে ফেলল হোয়াটসঅ্যাপ। নতুন নিয়ম এখনই চালু হচ্ছে না। তিন মাস পর নতুন নিয়ম কার্যকর হবে।
হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি পলিসি নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয় কিছুদিন আগেই। এমনকি দিল্লি হাইকোর্টে হয়েছিল জনস্বার্থ মামলাও। কয়েক কোটি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারী এই অ্যাপ ছেড়ে টেলিগ্রামের মতো অ্যাপগুলো ব্যবহার করা শুরু করেছিল। এসব পরিস্থিতির কারণেই হয়তো এমন সিদ্ধান্ত নিল ফেসবুকের মালিকানাধীন সংস্থা হোয়াটসঅ্যাপ।

হোয়াটসঅ্যাপের প্রাইভেসি–বিষয়ক নীতিমালা ও ব্যবহারের শর্ত পরিবর্তন নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করতে হলে এখন ফেসবুকের সঙ্গে তথ্য শেয়ারের অনুমতি দিতে হবে। তা না হলে হোয়াটসঅ্যাপ মুছে ফেলতে হবে বলে শর্ত দিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ। ফেসবুককে তথ্য দিতে বাধ্য করার বিষয়টি নিয়ে অনেকেই অনলাইনে হোয়াটসঅ্যাপের সমালোচনা করছেন। বিষয়টি পরিষ্কার করে আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতি দিয়েছিল হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ। হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ বলছে, নতুন নীতিমালায় তাদের ফেসবুকের সঙ্গে তথ্য শেয়ার করার যে চর্চা, তাতে কোনো পরিবর্তন আসছে না। নতুন প্রাইভেসি পলিসি ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে। এতে কেবল বিজনেস অ্যাকাউন্টগুলোর জন্য তথ্য শেয়ারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে গ্রাহকের চ্যাটের ক্ষেত্রে কোনো পরিবর্তন দেখা যাবে না। অর্থাৎ, এতে বিজনেস অ্যাকাউন্ট বাদে সাধারণ ব্যবহারকারী কোনো পরিবর্তন লক্ষ করবেন না। হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারী ব্যবসায় যুক্ত অ্যাকাউন্টগুলোর সঙ্গে কথা বলবেন কি না, তা নির্ধারণ করতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন

নীতিমালায় নতুন পরিবর্তনের মধ্যে ফেসবুকের আন্তর্জাতিক গোপনীয়তা নীতির একটি অংশ সরানো হয়েছে, যাতে আগে ব্যবহারকারীরা ফেসবুকের সঙ্গে ব্যক্তিগত তথ্য ভাগ করে নেওয়া থেকে এক মাসের মধ্যে বেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেতেন। এখন নতুন পরিবর্তনের ফলে ব্যবহারকারীকে সরাসরি হেল্পলাইন সেন্টারে নেওয়া হবে, যেখানে অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলার জন্য বলা হবে। হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি-বিষয়ক নীতিমালা ও ব্যবহারের শর্ত পরিবর্তন নিয়ে সমালোচনার পরই হোয়াটসঅ্যাপ বলেছে, নতুন নিয়ম এখনই চালু হচ্ছে না। তিন মাস পর নতুন নিয়ম কার্যকর হবে।
হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, ‘হোয়াটসঅ্যাপের এই আপডেট নিয়ে একাধিক ভ্রান্ত ধারণা তৈরি হয়েছে। অনেক ভুয়া তথ্যও ছড়িয়ে পড়ছে। এটি রীতিমতো চিন্তার বিষয়। সবাইকে নতুন নীতির বিষয়ে সাহায্য করতে চান তারা। খুব সাধারণ ধারণা থেকে হোয়াটসঅ্যাপ তৈরি হয়েছে। বন্ধু ও পরিবারের মধ্যে যে কথা হবে তা যেন গোপন থাকে, নিজেদের মধ্যে থাকে। এর অর্থ হলো আমরা সব সময় এই নীতি মেনেই চলব। লোকেশন শেয়ার করলেও তা হোয়াটসঅ্যাপ জানতে পারে না। হোয়াটসঅ্যাপের কন্ট্যাক্ট ফেসবুকের সঙ্গেও শেয়ার করা হয় না।’

হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নতুন আপডেট হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেসের জন্য। তবে সেই তথ্যও ফেসবুকের সঙ্গে শেয়ার করা হবে না বলেই আশ্বাস দিয়েছেন তাঁরা। যদিও পরিস্থিতি বিচার করে আপাতত ৮ ফেব্রুয়ারি আপডেট নিয়ে আসা হচ্ছে না। হোয়াটসঅ্যাপের সুরক্ষা নিশ্চিত করে, ভ্রান্ত ধারণা দূর করে তবেই নতুন আপডেট আনবেন তাঁরা। ১৫ মের পর এই আপডেট আনা হবে।

হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করলে ঠিক কোন কোন তথ্য নেয়, সেটির একটি চার্ট-সহ নথি গতকাল শুক্রবার নিজেদের ব্লগে প্রকাশ করেছে সংস্থাটি। ফেসবুকের এক্সিকিউটিভ এবং ইনস্টাগ্রাম প্রধান অ্যাডাম মোসেরি, হোয়াটসঅ্যাপ প্রধান উইল ক্যাথকার্ট টুইটারে ইতিমধ্যে এই বিষয়ে প্রচার করা শুরু করেছে। ফেসবুকের খারাপ প্রাইভেসি রেকর্ডের জের যাতে হোয়াটসঅ্যাপে না পড়ে, সেই চেষ্টা করছেন তাঁরা। তথ্যসূত্র: এনডিটিভি

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন