default-image

আবারও অবৈধভাবে নজরদারির অভিযোগ উঠেছে ফেসবুকের বিরুদ্ধে। এবারের অভিযোগ হলো, মোবাইল ফোনের ক্যামেরার মাধ্যমে ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীর ওপর নজর রাখছে তারা।
মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোর ফেডারেল আদালতে গতকাল বৃহস্পতিবার ইনস্টাগ্রামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন অ্যাপটির ব্যবহারকারী ব্রিটানি কনডিটি। অভিযোগে তিনি বলেন, অ্যাপটির ক্যামেরা-ব্যবহার উদ্দেশ্যমূলক। কাজটি তারা করছে ব্যবহারকারীর এমন তথ্য সংগ্রহের জন্য যা অন্য কোনোভাবে পাওয়া যেত না।
ব্রিটানি আরও বলেন, ব্যবহারকারীর নিজ ঘরের খুবই ব্যক্তিগত ও নাজুক তথ্য সংগ্রহ করে ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক বাজার গবেষণার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচ্ছে। ব্লুমবার্গ এ বিষয়ে জানতে চাইলে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে ফেসবুক।

বিজ্ঞাপন

প্রকাশিত খবরের প্রেক্ষিতে গত জুলাইয়ে ইনস্টাগ্রামের বিরুদ্ধে করা এক মামলায় বলা হয়েছিল, ছবি ভাগাভাগির অ্যাপটি প্রয়োজন ছাড়াই আইফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করছে। সে সময় অভিযোগ অস্বীকার করে সফটওয়্যারে ত্রুটির (বাগ) কথা বলেছিল ফেসবুক। তাদের ভাষ্য ছিল, ইনস্টাগ্রাম আইফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করছে না। বরং ত্রুটির কারণে ব্যবহারকারীর কাছে এ বিষয়ে ভুল নোটিফিকেশন যাচ্ছে।
গত মাসে দায়ের করা এক মামলায় ফেসবুকের বিরুদ্ধে চেহারা শনাক্তকরণ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ১০ কোটি ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীর বায়োমেট্রিক তথ্য সংগ্রহের অভিযোগ আনা হয়। সেবারও অভিযোগ অস্বীকার করে ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ইনস্টাগ্রাম চেহারা শনাক্তকরণ প্রযুক্তি ব্যবহার করে না।

মন্তব্য পড়ুন 0