বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুরভ লিখেছেন, নতুন ব্যবহারকারীদের জন্য আমি বলতে চাই, ‘বৃহত্তম স্বাধীন বার্তা পাঠানোর অ্যাপ টেলিগ্রামে স্বাগতম। অন্যরা আপনাদের হতাশ করলেও আমরা করব না।’

দীর্ঘদিন ধরে হোয়াটসঅ্যাপের ২০০ কোটি ব্যবহারকারীতে টেলিগ্রামের নজর। এ বছরের শুরুর দিকে অ্যাপটিতে হোয়াটসঅ্যাপের চ্যাট হিস্ট্রি আনার অপশন চালু করা হয়, যেন ব্যবহারকারীরা চাইলে তাঁদের আদান–প্রদানকৃত বার্তা না হারিয়েই হোয়াটসঅ্যাপ থেকে টেলিগ্রামে আসতে পারেন। ভিডিও কল ও লাইভ স্ট্রিমিংসহ অন্যান্য সুবিধাও যুক্ত করা হয়। তবে সিগন্যাল বা হোয়াটসঅ্যাপের মতো আগে থেকে নিরাপত্তা সুবিধা ‘এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন’ সচল থাকে না এতে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা এজেন্সির সাবেক কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেন দীর্ঘদিন ধরে সিগন্যাল ব্যবহারের কথা বলে আসছেন। ২০১৫ সালে বলেছিলেন, অ্যাপটি তিনি প্রতিদিন ব্যবহার করেন। আর গত সোমবার ফেসবুকের সেবা বিঘ্নের সময়টাতে তিনি টুইটারে লিখেছেন, ‘ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপ বিকল থাকায় আপনার এবং আপনার বন্ধুর সম্ভবত সিগন্যালের মতো আরও গোপনীয়, অলাভজনক বিকল্প ব্যবহার করা উচিত। এটাও বিনা মূল্যের এবং এই প্ল্যাটফর্ম আসতে ৩০ সেকেন্ডের মতো লাগে।’

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন