default-image

যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি কোম্পানি অ্যাপল তাদের জনপ্রিয় আইফোনের পুরোনো মডেলের গতি কমিয়ে দেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ৩৩টি অঙ্গরাজ্যে মামলা হয়েছিল। অ্যাপল কর্তৃপক্ষ ১১ কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলারে ওই মামলা নিয়ে সমঝোতা করছে। বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ৩৩টি অঙ্গরাজ্যে দাবি করা হয়েছিল, অ্যাপল তাদের নতুন আইফোন বিক্রি বাড়াতে পুরোনো মডেলের আইফোনের গতি কমিয়ে দেয়। ২০১৬ সালে আইফোন ৬, ৭ ও এসই মডেলের গতি কমিয়ে দেওয়া হলে লাখো মানুষের ওপর তার প্রভাব পড়ে। ঘটনাটি ‘ব্যাটারিগেট’ কেলেঙ্কারি হিসেবে প্রযুক্তি বিশ্বে পরিচিত হয়ে ওঠে।

বিজ্ঞাপন

মামলায় সমঝোতা করা নিয়ে অ্যাপল কোনো মন্তব্য করেনি। তবে তারা এর আগে বলেছিল, ব্যাটারির আয়ু ধরে রাখতেই তারা ফোনের গতি কমিয়ে দেয়।

এর আগে গত মার্চে পৃথক আরেকটি ক্লাস অ্যাকশন মামলায় ৫০ কোটি মার্কিন ডলারে সমঝোতা করে অ্যাপল।

২০১৬ সালে অ্যাপল মূলত সফটওয়্যার হালনাগাদ আনে যাতে আইফোন ৬, ৭ ও এসই মডেলের চিপের গতি কমে যায়।

২০১৭ সালে গবেষকেরা আইফোনের গতি কমে যাওয়ার বিষয়টি ধরতে পারে। অ্যাপল তা জেনেবুঝে করার বিষয়টি স্বীকার করে নেয়। অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যে করা মামলার আরজিতে বলা হয়, লাখো আইফোন ব্যবহারকারী আইফোনের গতি কমে যাওয়ার সমস্যায় পড়েন। অ্যাপল প্রতারণা করে এ কাজ করেছে বলে অভিযোগ ওঠে।

অ্যাপলকে ব্যাটারি বদলে দেওয়ার বা সফটওয়্যার আপডেটে গতি কমিয়ে দেওয়ার বিষয়টি আগে জানানো উচিত ছিল বলে যুক্তি দেখায় অঙ্গরাজ্যগুলো।

অ্যাপলের পক্ষ থেকে অর্থনৈতিক লাভের উদ্দেশ্যে আইফোনের গতি কমানোর বিষয়টি অস্বীকার করা হয়। তবে অ্যারিজোনার অ্যাটর্নি জেনারেল মার্ক ব্রনোভিচ বলেন, আইফোনের পারফরম্যান্স বা দক্ষতা বাড়ানোর একমাত্র উপায় ছিল নতুন ডিভাইস কেনা। অ্যাপল অবশ্যই বিক্রির ক্ষেত্রে এ ধরনের প্রভাব পড়ার বিষয়টি জানত।

সমঝোতায় অ্যাপল অবশ্য আইন ভাঙার বা ভুল কিছু করার বিষয়টি স্বীকার করছে না।

বিজ্ঞাপন

সমঝোতায় আগামী তিন বছরে আইফোনের ব্যবস্থাপনা বিষয়ে বিশ্বাসযোগ্য তথ্য দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে অ্যাপল।

অ্যাপলের বিরুদ্ধে বেশ কিছু নতুন অভিযোগের মধ্যেই সমঝোতার এ খবর এল। বর্তমানে অ্যাপল এপিক গেমের সঙ্গে মামলায় জড়িয়ে পড়েছে।

এপিক গেমের অভিযোগ, অ্যাপ স্টোরের ক্ষমতা ব্যবহার করে অ্যাপ ডেভেলপারদের কাছ থেকে অন্যায্য অর্থ আদায় করে প্রতিষ্ঠানটি।

মন্তব্য পড়ুন 0