বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এবারের আয়োজনে মোট আটটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেওয়া হয়। আইডেন্টি অ্যান্ড প্রাইভেসি ক্যাটাগরিতে হংকংয়ের ‘হেল্পপ্রুফ’ গোল্ড আওয়ার্ড পায়। এ ছাড়া সিলভার মেডেল অ্যাওয়ার্ড হিসেবে ফিনটেক ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের ‘হোপফুল্লি হাইপোথেটিক্যাল্লি থিওরেটিক্যাল্লি’ এবং সাপ্লাই চেইন ক্যাটাগরিতে ভিয়েতনামের ‘ভিফাচেইন’ ব্রোঞ্জ পেয়েছে।

অন্যান্য ক্যাটাগরির মধ্যে ই-গভর্ন্যান্স এ বাংলাদেশের রকেট, ডকুমেন্ট অথেন্টিফিকেশনে বাংলাদেশের ব্রোগ্রামারস, ফিনটেকে হংকংয়ের ফিডেলো, হেলথটেকে ভিয়েতনামের লাইফলিংক, আইডেন্টি অ্যান্ড প্রাইভেসি ক্যাটাগরিতে ভিয়েতনামের কিডক্যাট, এডুটেকে ফিলিপাইনের এডারনা, সাপ্লাই চেইনে হংকংয়ের টুলাক্স এবং প্রোটোটাইপের ফিনটেক ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের ডিইউ নিমবাস–এর নাম ঘোষণা করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াডের মাধ্যমে এ ধরনের প্রযুক্তির গবেষণা ও বিকাশকে আরও সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বাংলাদেশ সরকার তরুণদের এ মেধা ও প্রচেষ্টাকে সব সময় সমর্থন করবে।

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ বলেন, ব্লকচেইনের নতুন ধারার ইন্টারনেট। এ প্রযুক্তিকে কাজে লাগাতে হবে। ইন্টারনেটে যেভাবে তথ্য বিনিময় হয়, তেমনি ভ্যালুচেঞ্জ, মালিকানা হস্তান্তর এবং লেনদেন যাচাইয়ে ব্লকচেইন ব্যবহৃত হবে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক মো. আবদুল মান্নান, আইসিটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ, আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড ২০২১–এর চেয়ারম্যান এবং টেকনোহ্যাভেন কোম্পানি লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও হাবিবুল্লাহ এন করিম। এ ছাড়া অনলাইনে যুক্ত হন হংকং ব্লকচেইন সোসাইটির প্রেসিডেন্ট লরেন্স মা এবং ব্লকচেইন সোসাইটির ডেভিড সিজেল।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন