default-image

মুখের ক্যানসারের ঝুঁকি আরও নিখুঁতভাবে শনাক্ত করতে চিকিৎসকদের সহায়তা করবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স (এআই)। যুক্তরাজ্যের শেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা এ প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন।

গবেষকেরা এআই, মেশিন লার্নিং পদ্ধতি ব্যবহার করে মুখের ক্যানসার শনাক্তের উপযোগী প্রোগ্রাম তৈরি করেছেন। এ প্রোগ্রাম চিকিৎসকেরা ব্যবহার করতে পারবেন। বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গবেষকেরা বলছেন, গত এক দশকে মানুষের মুখ, জিব, টনসিল এবং ওরোফেরেঞ্জিয়াল ক্যানসার ৬০ শতাংশ বেড়ে গেছে। তামাক ও অ্যালকোহল সেবন, ভাইরাস, বয়স বৃদ্ধি, যথেষ্ট ফল ও সবজি না খাওয়ার কারণে মুখের ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ে। মুখের ক্যানসার শনাক্তে দেরি হয় বলে এ রোগে সেরে ওঠার হার কম।

বর্তমানে চিকিৎসকদের ক্যানসার–পূর্ব পরিবর্তন বা এপিথেলিয়াল ডিসপ্লেসিয়া (ওইডি) বিবেচনা করতে হয়। এরপর বায়োপসি করে ক্যানসার নির্ণয় করেন।

শেফিল্ডের গবেষকেরা বলেন, ওইডির নিখুঁত গ্রেড নির্ধারণ করা কঠিন। অনেক সময় অভিজ্ঞ প্যাথলজিস্টরাও সমস্যায় পড়েন।

শেফিল্ডের স্কুল অব ক্লিনিক্যাল ডেনট্রিস্ট্রির জ্যেষ্ঠ প্রভাষক আলী খুররম বলেন, মুখের ক্যানসার নির্ণয়ের পদ্ধতিটি বিষয়গত। এ ক্ষেত্রে সঠিক গ্রেডিং গুরুত্বপূর্ণ। এর মাধ্যমে রোগীকে পর্যবেক্ষণে রাখার বা সার্জারি করার বিষয়টি নির্ধারণ করা হয়। এ ক্ষেত্রে মেশিন লার্নিং ও এআই ক্যানসার শনাক্ত ও চিকিৎসায় সাহায্য করতে পারে। এআই নিখুঁতভাবে সঠিক গ্রেডের কথা জানাতে পারে।

ওয়্যারউইক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নাসির রাজপুত বলেন, পরীক্ষামূলক প্রকল্পটি একটি চিকিৎসা টুল তৈরির পথ দেখাবে এবং মুখের প্রাথমিক ক্যানসার শনাক্তে কাজ করবে। প্রকল্প সফলভাবে সমাপ্ত হলে রোগীর জীবন রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0