default-image

স্মার্টওয়াচ বা স্মার্ট হাতঘড়ি নিয়ে গত বছর যতটা হইচই হয়েছে সে তুলনায় স্মার্টওয়াচ বিক্রি হয়েছে অনেক কম। এ বছরও প্রযুক্তি বিশ্বে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় পরিধেয় প্রযুক্তিপণ্য। স্মার্টওয়াচ নিয়ে শোরগোল যতই হোক না কোনো বাজারে কিন্তু এই ঘড়ি তেমন সাড়া ফেলতে পারছে না। প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট গিগাওমের এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্যানালিসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালে ৪৬ লাখ ইউনিট স্মার্ট ঘড়ি বিক্রি হয়েছে। সবচেয়ে আলোচিত অ্যান্ড্রয়েড ওয়্যার চালিত স্মার্টওয়াচ আশানুরূপ বিক্রি হয়নি। পুরো বছরে মাত্র সাত লাখ ২০ হাজার ইউনিট বিক্রি হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ওয়্যার স্মার্টওয়াচ। সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে মটোরোলার মটো ৩৬০ ।
বাজার গবেষকেরা বলছেন, অনেকেই অ্যাপলের স্মার্টওয়াচের জন্য অপেক্ষা করছেন। এ বছরের এপ্রিল মাস নাগাদ নতুন স্মার্টওয়াচের ঘোষণা দেবে আইফোন, আইপ্যাড নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি।
বছরে ৪৬ লাখ ইউনিট স্মার্টওয়াচ বিক্রি হলেও অ্যান্ড্রয়েড ওয়্যারের জনপ্রিয়তার বিষয়টি প্রশ্নের মুখেই পড়ে যাচ্ছে। কারণ গুগলের এই ওএস চালিত স্মার্টওয়াচ প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করে অনেক নির্মাতা স্মার্টওয়াচ বাজারে ছেড়েছে। দীর্ঘদিন ধরে অ্যান্ড্রয়েড নির্ভর স্মার্টফোন তৈরি করলেও তাইওয়ানের এইচটিসি অ্যান্ড্রয়েড ওয়্যার নির্মিত স্মার্টওয়াচ তৈরির পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে। এইচটিসি নিজস্ব প্ল্যাটফর্মের স্মার্টওয়াচ তৈরির কথা ভাবছে।
আলটিমেটাম
প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা বলছেন, প্রযুক্তিপণ্যের ক্ষেত্রে নতুন যুগের সূচনা হয়েছে। গ্রাহকপর্যায়ে পরিধেয় প্রযুক্তিপণ্যের ব্যবহারের হার ধীরে হলেও পরিধেয় প্রযুক্তিপণ্যের নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যাপক প্রচার চালাচ্ছে। তাদের এই প্রচারণাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড ওয়্যার চালিত কোনো ব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচ এ বছরে জনপ্রিয় না হলে গুগলকে সমস্যার মধ্যে পড়ে যেতে হবে কারণ গুগলের ওপর থেকে সবটুকু আলো কেড়ে নেওয়ার জন্য দৃশ্যপটে উঁকি দিচ্ছে অ্যাপল পণ্য।

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন