বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিএমডব্লিউর তথ্যমতে, রং পরিবর্তনের জন্য গাড়িটির বাইরের শরীরে গতানুগতিক রঙের বদলে ব্যবহার করা হয়েছে লাখ লাখ মাইক্রোক্যাপসুল। মানুষের চুলের চেয়েও আকারে ছোট ক্যাপসুলগুলোতে রয়েছে ‘ই-লিংক’ বা ইলেকট্রনিক ইঙ্ক সুবিধা, যা সাধারণত ‘ই-রিডার’ স্ক্রিনে ব্যবহার করা হয়। গাড়ির ভেতরে থাকা যাত্রী সুইচে চাপ দিলেই ক্যাপসুলগুলো রং পরিবর্তন করে সাদা বা কালো হয়ে যায়। ফলে নিজ থেকেই গাড়ির রং পরিবর্তন হয়ে যায়।

শুধু বাইরের রং পরিবর্তনই নয়, ভেতরের নকশায়ও আনা হয়েছে নতুনত্ব। সিটের পেছনে আকারে বড় স্ক্রিন থাকায় সিনেমা হলের আদলে ভিডিও দেখার সুযোগও মিলবে। শিগগিরই বাজারে আসতে যাওয়া গাড়িটি কিনতে গুনতে হবে ৮৪ হাজার ডলার।

সূত্র: ম্যাশেবল

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন