default-image

অ্যাপল ওয়াচের প্রতিটি নতুন সংস্করণে অন্তত একটি করে চমক থাকে। কয়েক বছর ধরে অ্যাপল সে চমক দিচ্ছে স্বাস্থ্যবিষয়ক সুবিধা যোগ করে। এর আগে হৃৎস্পন্দন মাপা, করোনা শনাক্তে রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা নির্ণয়, এমনকি ইসিজি করার মতো সুবিধা দেওয়া হয়েছে।

এ বছর অ্যাপলের স্মার্টঘড়িতে রক্তে গ্লুকোজ মাপার সুবিধা যুক্ত হচ্ছে বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। শুধু অ্যাপল ওয়াচ নয়, স্যামসাংয়ের নতুন গ্যালাক্সি ওয়াচেও সুবিধাটি থাকবে বলে শোনা যাচ্ছে। দক্ষিণ কোরীয় সংবাদমাধ্যম ইটিনিউজের প্রতিবেদনে এ সব জানানো হয়। তথ্যগুলো ঠিক হলে ডায়াবেটিস নির্ণয় একদম সহজ হয়ে যাওয়ার কথা।

অপটিক্যাল সেন্সর ব্যবহার করে রক্তে গ্লুকোজ নির্ণয় করবে স্মার্টঘড়ি। এতে রক্ত বের করে মাপার প্রচলিত পদ্ধতির প্রয়োজন হবে না। ‘রামান স্পেকট্রোস্কপি’ প্রযুক্তি ব্যবহার করে কাজটি করা হবে বলে সে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
default-image

মূলত, ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যই সুবিধাটি আনছে অ্যাপল ও স্যামসাং। ফলে, ব্যবহারকারীদের আর নিত্য সুই দিয়ে আঙুলের ডগায় ফুটো করে রক্ত বের করে গ্লুকোজ মাপতে হবে না। তবে প্রচলিত পদ্ধতির তুলনায় স্মার্টঘড়িতে গ্লুকোজ মাপা কতটা নির্ভুল হবে, সেটিই এখন প্রশ্ন।

চলতি বছরের দ্বিতীয়ার্ধে স্যামসাংয়ের ‘গ্যালাক্সি ওয়াচ ৪’ বাজারে ছাড়ার কথা রয়েছে। স্মার্টঘড়িটি ‘গ্যালাক্সি ফোল্ড ৩’ মডেলের ভাঁজযোগ্য ডিসপ্লের স্মার্টফোনের সঙ্গেই ছাড়া হতে পারে বলেও শোনা যাচ্ছে। এদিকে ‘গ্যালাক্সি ওয়াচ অ্যাকটিভ ৩’ মডেলের আরেকটি স্মার্টঘড়িও বাজারে আসার কথা রয়েছে এ বছর।

দিন কয়েক আগে শেষ হওয়া কনজ্যুমার ইলেকট্রনিকস শো (সিইএস) মেলায় কোয়ান্টাম অপারেশন নামের এক জাপানি প্রতিষ্ঠান পরীক্ষামূলক একটি পরিধেয় যন্ত্র দেখিয়েছে, যেটি একই কাজ করতে পারবে বলে দাবি করা হয়েছিল। কোয়ান্টামের তৈরি যন্ত্রে খুদে স্পেকট্রোমিটারের সাহায্যে রক্ত পরীক্ষা করার কথা ছিল। প্রতিষ্ঠানটির ভাষ্য, ২০ সেকেন্ড স্ক্যান করলেই নির্ভুলভাবে রক্তে চিনি মাপা সম্ভব হবে।

সূত্র: কাল্ট অব ম্যাক, নাইন-টু-ফাইভ গুগল

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন