default-image

কোয়ালকমকে চীনা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের কাছে চিপ বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন সরকার। গতকাল শুক্রবার মার্কিন করপোরেট প্রতিষ্ঠানটি ফোর–জি মোবাইল ফোন চিপসেট বিক্রির এ অনুমোদন পায়।

চীনের সঙ্গে বাণিজ্য উত্তেজনার সময় হুয়াওয়ের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল ট্রাম্প প্রশাসন। কোয়ালকমকে চিপ বিক্রির অনুমোদন দেওয়াটা সেই নিষেধাজ্ঞার ব্যতিক্রম হিসেবে দেখা হচ্ছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

কোয়ালকমের একজন মুখপাত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘আমরা বেশ কিছু পণ্যের জন্য অনুমোদন পেয়েছি। এর মধ্যে ফোর–জি পণ্যও রয়েছে।’

গত সেপ্টেম্বর মাসে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হলে কোয়ালকমসহ অন্যান্য সেমিকন্ডাক্টর নির্মাতা মার্কিন কোম্পানিগুলো হুয়াওয়ের কাছে চিপসেট বিক্রি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়।

বিজ্ঞাপন

কোয়ালকমের মুখপাত্র বলেছেন, মোবাইল ডিভাইসসংক্রান্ত ফোর–জি চিপসেট বিক্রির অনুমোদন পেয়েছেন তাঁরা। কোয়ালকমের অন্যান্য লাইসেন্স আবেদন এখনো মার্কিন সরকারের কাছে ঝুলে রয়েছে।

এর আগে কোয়ালকমের কাছ থেকে খুব অল্প পরিমাণ চিপসেট কিনত হুয়াওয়ে। বিশ্বের বৃহত্তম চিপ সরবরাহকারী কোয়ালকম। তবে হুয়াওয়ে বেশির ভাগই সাশ্রয়ী দামের মোবাইল ফোনে কোয়ালকমের চিপসেট ব্যবহার করত। এর পরিবর্তে ফ্ল্যাগশিপ ফোনে নিজস্ব চিপসেট ব্যবহার করত হুয়াওয়ে।

সেপ্টেম্বর মাসে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়ে সে দেশের প্রযুক্তি ব্যবহারে আটকে যায় হুয়াওয়ে। ফলে নিজস্ব চিপসেট উৎপাদন বন্ধ করতে হয়। প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, হুয়াওয়ের কাছে সংরক্ষিত চিপসেট আগামী বছরের শুরুতেই শেষ হয়ে যাবে।

বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান বার্নস্টেইনের বিশ্লেষক স্ট্যাসি রাসগন বলেন, কোয়ালকমের চিপ বিক্রির অনুমোদন পাওয়ার বিষয়টি হুয়াওয়ের ওপর খুব কম প্রভাব ফেলবে। কারণ তারা শুধু ৪–জি চিপের জন্য অনুমোদন পেয়েছে। বিশ্ব এখন ৫–জি ডিভাইসের পেছনে ছুটছে। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা কোয়ালকমকে ৫–জি চিপসেট বিক্রির অনুমোদন দেবে কি না, তাই এখন দেখার বিষয়।

মন্তব্য পড়ুন 0