default-image

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্রান্ট হতে সহায়তা দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ২০২০ সালের মধ্যে ১০০ জন উদ্যোক্তা তৈরি করা হবে। এ ছাড়া আইডিয়া প্রকল্পের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে এক হাজার স্টার্টআপ তৈরি করা হবে। স্টার্টআপ একদিকে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে অন্যদিকে দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করবে।

প্রতিমন্ত্রী গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে ইউএনডিপি ও সিটি ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে ‘ন্যাশনাল ডায়ালগ অন পস্টার দ্য স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আইসিটি বিভাগের অধীন বিভিন্ন জেলায় ২৮টি হাইটেক পার্ক স্থাপন করা হচ্ছে। উদ্যোক্তাদের পার্কগুলোতে ওয়ার্কিং স্পেস, মেন্টরিং, কোচিং ও গবেষণাসহ নিজেদের উদ্ভাবনকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে সার্বিক সহায়তা করা হবে। এতে উদ্যোক্তাদের চাকরির জন্য কোথাও যেতে হবে না। তারা নিজের চাকরির ক্ষেত্র তৈরি করবে। তারা সফল হলে দেশীয় পণ্যের বিকাশ ঘটবে এবং বিদেশি পণ্যের আগ্রাসন থেকে দেশ রক্ষা পাবে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, সরকার আইডিয়া প্রকল্পের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের নন–রিফান্ডেবল সিড মানি হিসেবে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত দিচ্ছে এবং গ্রোথ স্টেজে ১ কোটি থেকে ১০ কোটি টাকা পর্যন্ত দেবে। এই সুযোগ সঠিকভাবে কাজে লাগাতে তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য দেন সিটি ফাউন্ডেশনের বাংলাদেশে নিযুক্ত আবাসিক প্রতিনিধি রাজা শেখেরন।

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন