বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার তথ্য অনুযায়ী, আজ চাঁদের ৯৭ শতাংশ সূর্যের আলো থেকে বঞ্চিত হয়। সে কারণেই একে আংশিক চন্দ্রগ্রহণ বলা হচ্ছে। শুরুতে ক্রমে আঁধারে ঢেকে গেলেও গ্রহণের একপর্যায়ে লালচে রং ধারণ করে চাঁদ। শেষ দিকে আবার ক্রমে আঁধারে ঢেকে যেতে থাকে।

default-image

বাংলাদেশ সময় আজ দুপুর ১২টা ২ মিনিটে শুরু হয় পিনামব্রাল চন্দ্রগ্রহণ। পিনামব্রাল পর্যায়ে পৃথিবীর প্রচ্ছায়ায় না থেকে উপচ্ছায়ায় থাকে চাঁদ। ওপরের ছবিতে দেখুন, মূল ছায়ার বাইরের অংশটুকুতে যখন চাঁদ থাকে, তখন বলা হয় পিনামব্রাল চন্দ্রগ্রহণ। আর ৩ ঘণ্টা ২৮ মিনিট এবং ২৪ সেকেন্ডের মূল গ্রহণ বেলা ১টা ১৯ মিনিটে শুরু হয়ে শেষ হয় বিকেল ৪টা ৪৭ মিনিটে। এরপর পিনামব্রালের পরবর্তী ধাপ শুরু হয়। বাংলাদেশ থেকে দেখা গ্রহণটি এ পর্যায়ের।

গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, আকাশ পরিষ্কার থাকলে বিকেল সোয়া পাঁচটার আশপাশে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে।

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিস এবং বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে আলীকদমে চন্দ্রগ্রহণ পর্যবেক্ষণের আয়োজন করা হয়। সেখানে আকাশ মেঘমুক্ত ছিল এবং চন্দ্রগ্রহণ পরিষ্কার দেখা গিয়েছে বলে জানান বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান মশহুরুল আমিন। তিনি বলেন, ‘গ্রহণযুক্ত অবস্থায় চাঁদ উঠেছে। আকাশ পরিষ্কার থাকায় দেখতে কোনো সমস্যা হয়নি। এখানে উপস্থিত স্থানীয় শিশু–কিশোরদের সঙ্গে নিয়ে আমরা তা পর্যবেক্ষণ করি।’

চন্দ্রগ্রহণ পর্যবেক্ষণ শেষে টেলিস্কোপে বৃহস্পতিসহ অন্যান্য গ্রহ ও নক্ষত্রে চোখ রাখেন তাঁরা।

default-image

এবারের গ্রহণের পুরোটা সবচেয়ে ভালো দেখা যায় উত্তর আমেরিকার দেশগুলো থেকে। চাঁদ ওঠার সময় বুঝে অস্ট্রেলিয়া, পূর্ব এশিয়া, উত্তর ইউরোপ এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলেও তা দৃশ্যমান হয়।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন