বিনোদনের রঙিন ভুবন সচল হচ্ছে অক্টোবর মাসে
বিনোদনের রঙিন ভুবন সচল হচ্ছে অক্টোবর মাসেকোলাজ

করোনার অচলায়তন ভাঙতে শুরু করেছে। নাটক ও সিনেমার শুটিং শুরু হয়েছে সীমিত পরিসরে। ইতিমধ্যে সেসব কার্যক্রম প্রায় স্বাভাবিক হয়ে গেছে। নাট্যমঞ্চেও জ্বলে উঠেছে আলো। করোনার আগের দিনগুলো থেকে ব্যতিক্রম শুধু এটুকুই, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছেন সবাই। তথ্যমন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, অক্টোবর মাসে সিনেমা হল খুলে দেওয়া হবে। নানা রকম বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানের আয়োজকেরাও প্রস্তুত। বলা চলে বিনোদনের রঙিন ভুবন সচল হচ্ছে অক্টোবর মাসে।

default-image

গত মাসে মহিলা সমিতি মিলনায়তনের মঞ্চে আয়োজন করা হয় শূণ্যনের নাটক লাল জমিন। সেপ্টেম্বর মাসে সপ্তাহের শুক্র ও শনিবার দুদিন নিজস্ব মহড়াকক্ষে স্বল্পসংখ্যক দর্শকের জন্য নাট্য প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে প্রাচ্যনাট। নাট্যকর্মীদের অপেক্ষা, কবে খুলবে শিল্পকলা একাডেমি।

বিজ্ঞাপন
default-image

জানা গেছে, শিল্পকলা একাডেমি উন্মুক্ত করার সব প্রক্রিয়া প্রায় শেষ। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী মঙ্গলবার প্রথম আলোকে জানান, আগামী মাসে শিল্পকলা একাডেমি খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে একাডেমিতে প্রবেশ ও মিলনায়তনগুলোতে বসার ব্যবস্থা করা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দর্শক ও নাট্যকর্মীরা যাতে সেখানে তাঁদের স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড চালাতে পারেন, সেটা বিশেষভাবে বিবেচনা করা হবে। এ সংক্রান্ত একটি নীতিমালা প্রায় চূড়ান্ত হয়েছে। যাঁরা হল বরাদ্দ নেবেন বা আবেদন করবেন, তাঁদের এ নীতিমালা মেনে হল সরবরাহ করা হবে। সে নীতিমালা মেনেই প্রদর্শনী চলবে।

বিজ্ঞাপন

দেশের বিভিন্ন জায়গায় ইতিমধ্যে নানা রকম অনুষ্ঠানের আয়োজন শুরু হয়েছে। সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সেসব অনুষ্ঠান চলছে। তবে বড় রকম অনুষ্ঠানের মৌসুম এখনো আসেনি। ইভেন্ট ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান ব্লুজ কমিউনিকেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরহাদুল ইসলাম বলেন, ‘অনুষ্ঠান করা নিয়ে তেমন বাধ্যবাধকতা দেখছি না। সীমিত পরিসরে অনেক অনুষ্ঠানই হচ্ছে। উন্মুক্ত জায়গায় হচ্ছে না বৃষ্টির কারণে। এ ছাড়া এ রকম একটা সময়ে টিকিট কেটে মানুষ অনুষ্ঠান দেখতে আসবেন কি না, সেটা ভেবে আয়োজকেরা অনুষ্ঠান কম করছেন।’ তিনি জানান, অক্টোবর মাসে ড্রাইভ ইন মুভি ফেস্টের আয়োজন করতে যাচ্ছেন তাঁরা। উন্মুক্ত জায়গায় অনুষ্ঠানের মৌসুম এলে পরিস্থিতি বিবেচনা করে গানের অনুষ্ঠান নিয়েও ভাববেন।

অক্টোবর মাসে ড্রাইভ ইন মুভি ফেস্টের আয়োজন করতে যাচ্ছেন তাঁরা। উন্মুক্ত জায়গায় অনুষ্ঠানের মৌসুম এলে পরিস্থিতি বিবেচনা করে গানের অনুষ্ঠান নিয়েও ভাববেন।
বিজ্ঞাপন

সিনেমা হল কবে খুলবে, এ নিয়ে দর্শক, হলমালিক ও সিনেমাসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের অপেক্ষার পালাও শেষ। সম্প্রতি প্রেক্ষাগৃহ খুলে দেওয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৬ অক্টোবর থেকে খুলছে সিনেমা হল। তবে মানতে হবে কিছু বিধিনিষেধ। প্রেক্ষাগৃহ মালিক সমিতির সঙ্গে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। সেদিন তথ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতি যদি এমনটাই থাকে, তাহলে ১৬ তারিখ হল খুলে দেওয়া হবে। তবে সংক্রমণ বেড়ে গেলে বিষয়টা নতুন করে বিবেচনা করা হবে। সর্বোপরি আনুষ্ঠানিক অনুমতি দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তথ্যমন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, হল খোলা হবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে। আসন সংখ্যার অর্ধেক দর্শক নিয়ে হল চলবে। দর্শকদের মুখে মাস্ক পরতে হবে। কোনো প্রেক্ষাগৃহে স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে কোনো ব্যত্যয় দেখা গেলে ওই প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ করে দেওয়া হবে।

default-image

বিনোদন অঙ্গনের প্রতিটি ক্ষেত্র জনসমাগমের। অন্যদিকে করোনা এমন এক মহামারি, যার জন্য জনসমাগম মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে। তবু স্বাস্থ্যবিধি মেনে নতুন স্বাভাবিক অবস্থার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যেতে আগ্রহী সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। এ ক্ষেত্রে আসন্ন শীত মৌসুমে সংক্রমণের পরিস্থিতির ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে। সংক্রমণ বাড়লে হয়তো নীতিনির্ধারকদের সব সিদ্ধান্ত নতুন করে নিতে হতে পারে।

মন্তব্য পড়ুন 0