default-image

সময়ের সঙ্গে হারিয়ে গেছে চেনা সেই শৈশব আর খেলার মাঠ। নতুন প্রজন্ম নিজেদের স্মৃতি সাজিয়ে তোলার আগেই অদৃশ্য হয়ে পড়েছে শহরের রূপ। শৈশবে খেলার মাঠে বিকেলের আনন্দগুলোকে কেড়ে নিয়েছে ইট-পাথরের গড়া শহর। তবে কেউ আবার গড়ে উঠছে দাদা-দাদির সেই শৈশবের গল্প শুনেই, জানছে বাংলাদেশের ইতিহাস, ঘরবন্দী জীবনে কল্পনার জগতে সাজাচ্ছে সেই শুনে নেওয়া দৃশ্যগুলোকে। কথাগুলো লিখিত হলেও বাস্তবে তার চিত্র সাজানো হয়েছে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী আফফান জাওয়াদ ও রাজবাড়ী গভর্নমেন্ট গার্লস হাইস্কুলের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী কুইনের নির্মিত সিনেমা দুটিতে। তেমনি আরও গল্প নিয়ে সিনেমা বানাতে ও শিখতে অংশ নিয়েছে স্কুল-কলেজের ছোট হাতগুলো।

বিজ্ঞাপন

‘নতুন প্রজন্ম,নতুন প্রযুক্তি ও নতুন যোগাযোগ’ শিরোনাম নিয়ে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম (এমএসজে) বিভাগের অন্যতম উদ্যোগ ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব’ (ডিআইএমএফএফ)। নতুন প্রজন্মের কিশোরদের কল্পনার জগৎকে বাস্তবে দৃশ্যায়ন করতে মাধ্যম তৈরি করে দিয়েছে এই উৎসব। করোনার সময় পৃথিবী কিছুটা স্তব্ধ হলেও আটকে যায়নি নবীনদের কল্পনার জগৎ। সেটি পূরণ করতেই চলল আট সপ্তাহব্যাপী অনলাইনভিত্তিক মোবাইল ফিল্ম মেকিং কোর্স। গতকাল শুক্রবার হলো এর সমাপনী অনুষ্ঠান।

ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ বা সমমানের শ্রেণিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণটি সাজানো হয়। স্মার্টফোন ব্যবহার করে চলচ্চিত্র নির্মাণবিষয়ক সম্যক ধারণা দেওয়ার পাশাপাশি আধুনিক গ্যাজেট ও সফটওয়্যার ব্যবহারে অভিজ্ঞতা প্রদান করাই এই প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্য ছিল। এই কর্মশালায় বাংলাদেশের নানান প্রান্ত থেকে যোগ দিয়েছে ১ হাজার ৮০ জন শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে থেকে নির্বাচিত ১৪৬ জনকে নিয়ে ১৭ জুলাই শুরু হয় এ কোর্স। ই-লার্নিং কোর্সটি সমন্বিত করেছেন ডিআইএমএফএফের উপদেষ্টা এবং মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কাবিল খান।

বিজ্ঞাপন

সিনেমা বানানোর স্বপ্ন নিয়েই তাঁদের প্রতিটি ধাপ সমানভাবে শিখিয়েই, তাদেরই বাস্তব গল্প তাদের দ্বারা নির্মিত হয়েছে ডিআইএমএফএফের ই-প্রশিক্ষণে। প্রশিক্ষক সৈয়দা মেহজাবিন ও প্রিয়াঙ্কা চৌধুরীর শেখানো সিনেমার ধাপগুলো নিয়েই স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থীদের হাতে নির্মিত ৬০টি সিনেমা ডিআইএমএফএফের ‘ওয়ান মিনিট ক্যাটাগরি’তে জমা পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বিকেল পাঁচটায় অনলাইন মোবাইল ফিল্ম মেকিং কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠান জুম প্ল্যাটফর্মে উদযাপিত হয়েছে। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন এমএসজে বিভাগের প্রধান জুড উইলিয়াম হেনিলো। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন এটুআইয়ের যুগ্ম প্রকল্প পরিচালক ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্ম সচিব (ই-গভর্ন্যান্স) দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, ফ্রেডরিখ নুইম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডমের (এফএনএফ বাংলাদেশ) বাংলাদেশ প্রতিনিধি নাজমুল হোসেইন। শিক্ষার্থীদের সিনেমার নতুন যাত্রায় উৎসাহিত দিতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফিল্ম ডিরেক্টর মিতালি রায়, সিনেমাটোগ্রাফার তানভীর আহসান এবং ডকুমেন্টারি নির্মাতা শাহীন দিল রিয়াজ। অনুষ্ঠানের মাঝে শিক্ষার্থীদের নির্মিত সিনেমা অনলাইনভিত্তিক প্রদর্শন করা হয় এবং সার্টিফিকেট দেওয়া হয়।

ডিআইএমএফএফের সঙ্গে এই আয়োজনে যুক্ত হয়েছে ফ্রেডরিখ নুইম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম (এফএনএফ বাংলাদেশ) ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের এস্পায়ার টু ইনোভেইট (এটুআই) প্রকল্প।

মন্তব্য পড়ুন 0