default-image

করোনার কারণে আকাশপথ প্রায় বন্ধ। সেই প্রভাব পড়তে শুরু করেছে চলচ্চিত্র অঙ্গনেও। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঢাকাই ছবির অনেক কাজের সঙ্গে যুক্ত বিদেশি অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলীরা। এমনকি ছবির প্রযোজনা–পরবর্তী কাজও দেশের বাইরে থেকে করিয়ে নিয়ে আসেন বেশির ভাগ প্রযোজক ও পরিচালক। ফলে আকাশপথ পুরোপুরি চালু হলেই তাঁরা পরিস্থিতি বিবেচনা করে শেষ করতে চান আটকে থাকা ছবিগুলোর অবশিষ্ট কাজ।

অক্টোবর মাসের দিকে হাওয়া ছবিটি মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন নির্মাতা মেজবাউর রহমান সুমন। প্রযোজনা–পরবর্তী চূড়ান্ত কাজ করতে ভারতে যাওয়ার ইচ্ছা তাঁর। মেজবাউর রহমান বলেন, 'তিন–চার মাস ধরে আমরা তেমন কোনো কাজই করতে পারিনি। মাত্র সবকিছু খোলা শুরু হয়েছে। দেশে আমাদের ডাবিংয়ের কাজসহ আরও কিছু কাজ বাকি আছে। সেগুলো শেষ করে ভারতে চূড়ান্ত কাজগুলো করব। এখন বিমানপথ চালু হলেই আমরা হাওয়া ছবির কাজ মোটামুটি শেষ করতে পারব।'

দীর্ঘ প্রায় তিন মাসের বেশি শুটিং বন্ধ থাকার পর ৫ জুন থেকে আবারও ঢালিউডে শুটিংয়ের অনুমতি মেলে। নিয়ম মেনে বিক্ষোভ ছবির কিছু অংশের দৃশ্যধারণ দিয়ে শেষ হয় এই ছবির বাংলাদেশ পর্বের শুটিং। ছবির এখনো একটি গানের দৃশ্য অসমাপ্ত আছে। গানের দৃশ্যায়নের পরিকল্পনা করা হয়েছে দেশের বাইরে। তাই তাঁরাও অপেক্ষায় আকাশপথ খুলে দেওয়ার। শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান বলেন, 'বিক্ষোভ সিনেমার একটি রোম্যান্টিক গানের শুটিং বাকি আছে। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু হলেই আমরা দেশের বাইরে শুটিং করব। আমাদের ইচ্ছা আছে সুইজারল্যান্ডে শুটিং করার।'

নাজিরা আহমেদ মৌ এবং কলকাতার ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত অভিনীত নন্দিনী ছবির সম্পাদনার কাজ প্রায় গুছিয়ে এনেছেন নির্মাতা। ছবির কালার গ্রেডিং করার জন্য মুম্বাইতে যেতে চান পরিচালক। কিন্তু এই অবস্থায় কী করবেন, ভেবে উঠতে পারছেন না। ছবির নির্মাতা শোয়েবুর রহমান বলেন, 'কালার গ্রেডিং দেশের বাইরে করার ইচ্ছা ছিল। দেশের বর্তমান পরিস্থিতি দেখে কিছুই বুঝতে পারছি না। সিনেমা হল কবে খুলবে ঠিক নেই। সিনেমার মুক্তি নিয়ে দোটানায় আছি। ছবির কাজেও গতি আসছে না।'

কলকাতার ছবিতে প্রথমবারের মতো অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম। গত মার্চ মাসেই এই অভিনেতা তাঁর অংশের দৃশ্যধারণ শেষ করে দেশে ফেরেন। এপ্রিল মাসে তাঁর আবার যাওয়ার কথা ছিল ডাবিংয়ে অংশ নিতে। ওই সময় করোনার প্রকোপ বাড়ায় যাওয়া সম্ভব হয়নি তাঁর। মোশাররফ করিম বলেন, 'করোনায় স্বাভাবিক যোগাযোগ বন্ধ হওয়ার কারণেই থেমে আছে ডাবিংয়ের কাজ। আকাশপথ চালু হোক। পরিস্থিতি বুঝেই তবে ডাবিংয়ে অংশ নেব।'
কলকাতার আরেকটি ছবি এটা আমাদের গল্পতে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী তারিন। গত মার্চ মাসে তাঁর অংশের দৃশ্যধারণ শেষ হয়। এই অভিনেত্রী বলেন, 'ছবিটিতে অন্য শিল্পীদের দুই–তিন দিনের কাজ বাদ আছে। এরপরই শুরু হবে ডাবিং। ফ্লাইট চালু হোক, পরিস্থিতি একটু ভালো হলেই ডাবিং করে আসব।'
পরিচালক মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নতুন ছবি নো ল্যান্ডস ম্যান–এর সম্পাদনা, কালার কারেকশন ও আবহ সংগীতের কাজ আটকে আছে। জানা গেছে, ছবির এই কাজ করতে পরিচালককে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতে যেতে হবে। করোনার কারণে আকাশপথে যোগাযোগ এখনো স্বাভাবিক না হওয়াতে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের কাজ থেমে আছে। তবে বাংলাদেশ অংশের যাবতীয় কাজ দ্রুতগতিতে চলছে বলে জানালেন পরিচালক।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0