আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার লা গ্যালারিতে শিল্পী নার্গিস পলির ‘নিখাদ দেশপ্রেম’ ছবিটি দেখছে একজন দৃষ্টিহীন বালক
আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার লা গ্যালারিতে শিল্পী নার্গিস পলির ‘নিখাদ দেশপ্রেম’ ছবিটি দেখছে একজন দৃষ্টিহীন বালক

সাধারণত কোনো প্রদর্শনীতে দেয়ালে ঝোলানো চিত্রকর্ম ছুঁয়ে দেখার নিয়ম নেই। কিন্তু এ ছবিটি ছুঁয়ে দেখার। ছবিটি বিমূর্ত। শিরোনাম ‘নিখাদ দেশপ্রেম’। লাল রঙের বিন্যাসে বিশেষভাবে আঁকা ছবি। দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীরা যেন স্পর্শে বুঝে নিতে পারে, তেমন করেই আঁকা। বিষয়টি স্পষ্ট হলো, একজন দৃষ্টিহীন বালক ছবিটির ওপর যখন হাত রাখল, রঙের প্রলেপের স্পর্শে অনুভব করার চেষ্টা করল। চোখ নয়, মন দিয়ে ছেলেটি অনুভব করল এ দেশের স্থপতিকে। ছবির লাল রং ছেলেটি দেখতে পেল না ঠিকই, কিন্তু ছবির বিষয়বস্তু বুঝতে অসুবিধা হলো না তার। ছেলেটি দারুণ খুশি।

ছবিটি এঁকেছেন নার্গিস পলি। আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার লা গ্যালারিতে শুরু হলো এ শিল্পীর ‘দ্য স্কিন অব আ লিভিং থট’ শীর্ষক একক চিত্র প্রদর্শনী। শুক্রবার প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বরেণ্য চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার। উদ্বোধনীতে সম্মানিত অতিথি ছিলেন অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থপতি আদনান মোরশেদ। প্রদর্শনীতে প্রায় ৩১টি চিত্রকর্ম স্থান পেয়েছে।

প্রদর্শনী দেখছেন শিল্পী ও অতিথিরা। ছবি প্রথম আলো
প্রদর্শনী দেখছেন শিল্পী ও অতিথিরা। ছবি প্রথম আলো

একটি চিত্রকর্ম শিল্পের সারবস্তু ভিন্ন ভিন্ন দর্শকের দৃষ্টিকোণভেদে, রং ও বিষয়বস্তুতে পাল্টে যেতে পারে—‘দ্য স্কিন অব আ লিভিং থট’ প্রদর্শনীর ছবিগুলো দেখে এ কথাটি প্রথমে মনে আসে। প্রদর্শনী চিত্রকর্মগুলোর মধ্যে ৮টি মিনিয়েচার, ৬টি ড্রয়িং এবং বাকি ১৭টি পেইন্টিং। ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা নেওয়া শিল্পী নার্গিসের চিত্রকর্মগুলোর ভিন্ন ভিন্ন ভাষা, ভিন্ন গল্প। সব কটি ছবিই শিল্পীর বিশ্লেষণধর্মী মন এবং সেই সঙ্গে তাঁর শৈল্পিক মননকে ব্যাপ্ত করে। তাঁর সজাগ দৃষ্টি রয়েছে নীতির দূষণ ও সামাজিক অবিচার প্রতিরোধে চিত্রশিল্পের ভূমিকায়।

চিত্রকর্মগুলোর ভিন্ন ভিন্ন ভাষা, ভিন্ন গল্প। ছবি প্রথম আলো
চিত্রকর্মগুলোর ভিন্ন ভিন্ন ভাষা, ভিন্ন গল্প। ছবি প্রথম আলো

এটি শিল্পীর প্রথম একক চিত্রকর্ম প্রদর্শনী। প্রদর্শনীটি চলবে ১৬ আগস্ট পর্যন্ত। সোম থেকে বৃহস্পতিবার বেলা ৩টা থেকে রাত ৯টা এবং শুক্র ও শনিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা এবং বিকেল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনীটি খোলা থাকবে বলে জানিয়েছেন আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার লা গ্যালারির অনুষ্ঠান কর্মকর্তা মামুন অর রশিদ।