default-image

রাত পোহালেই ভোট। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গঠিত হবে নতুন সরকার। ভোট দিতে রাজধানী ঢাকার বাসিন্দাদের অনেকেই চলে গেছেন নিজ এলাকায়। ঢাকা অনেকটাই ফাঁকা। তারকাদের মধ্যে যাঁরা নিজের এলাকায় ভোটার, তাঁদের কেউ কেউ ঢাকা ছেড়েছেন। এবার সংসদ নির্বাচনে তারকাদের কে কোথায় ভোট দেবেন, এখানে তা তুলে ধরা হলো।

default-image

চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খানের নির্বাচন করার কথা শোনা গিয়েছিল। এমন খবরও রটেছিল, শাকিব খান মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা গুজবই থেকে যায়। তবে ভোট নিয়ে শাকিবের আগ্রহের কোনো কমতি নেই। নিজ দলের সমর্থনে দিয়েছেন ভিডিও বার্তা। ভোটের কারণে এরই মধ্যে সিনেমার শুটিং স্থগিত করেছেন। দেশের সিনেমার জনপ্রিয় এই নায়ক ঢাকা-১৭ আসনের ভোটার। আগামীকাল রোববার সকালের দিকেই ভোট দিতে যাবেন। বললেন, ‘ভোট দেওয়া নাগরিক অধিকার ও কর্তব্য। আমি ঢাকা-১৭ আসনের ভোটার। গুলশানের একটি ভোটকেন্দ্রে সকালে ভোট দিতে যাব। ভোট শেষে বাসায় ফিরে দেশের ভোটের খবরাখবর জানার চেষ্টা করব।’

default-image

শাকিব খানের নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়ে লড়ছেন চলচ্চিত্রের বরেণ্য অভিনয়শিল্পী আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। শাকিবের পূর্ণ সমর্থন অগ্রজ এই অভিনয়শিল্পীর প্রতি। তিনি চান, ভালোভাবেই যেন জয়লাভ করেন তিনি। এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হয়ে লড়েছিলেন জাতীয় পার্টির হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। নির্বাচনের আগে বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদ ফারুকের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। এ আসন থেকে ধানের শীষ প্রতীকে লড়ছেন আন্দালিভ রহমান।

default-image

ঢাকা-৮ আসনের ভোটার জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী চঞ্চল চৌধুরী। টেলিভিশনের পাশাপাশি চলচ্চিত্রে তাঁর অভিনয় বেশ প্রশংসিত হয়েছে। বিজ্ঞাপনচিত্রেও এ অভিনেতা কম যান না। শাহজাহানপুরের ভোটার চঞ্চল চৌধুরী দিনের শুরুতেই ভোট দেবেন, এমনটাই জানালেন। বললেন, ‘আমার ভোটকেন্দ্র মিলেনিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ে। সকালেই ভোট দিতে যাব। সচেতন নাগরিক হিসেবে ভোট দেওয়া আমার দায়িত্ব। ভোট হলো উৎসবের মতো। অবশ্যই সবার কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেওয়া উচিত। শুটিং যেহেতু বন্ধ, তাই ভোট দেওয়া শেষে বাসায় ফিরে নির্বাচনের পরিস্থিতি দেখব। শুধু দিনে নয়, রাত জেগে নির্বাচনী ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করব।’ চঞ্চল চৌধুরীর নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের হয়ে লড়ছেন ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন আর বিএনপি থেকে মির্জা আব্বাস।

default-image

‘হঠাৎ বৃষ্টি’ সিনেমায় অভিনয়ের মধ্য দিয়ে দেশের চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়েছিল চিত্রনায়ক ফেরদৌসের। ২০ বছর ধরে সমানতালে চলচ্চিত্রে কাজ করছেন তিনি। দীর্ঘ অভিনয়জীবনে এবারই প্রথম রাজনীতি নিয়ে সরাসরি মাঠে নেমেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা থেকে শুরু করে আওয়ামী লীগের অনেক প্রার্থীর জন্য দেশের আনাচ-কানাচ চষে বেড়িয়েছেন তিনি। সবাইকে আওয়ামী লীগের পক্ষে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। নির্বাচনের শুরুর দিকে এই তারকার এমপি প্রার্থী হওয়ার কথা চাউর হয়েছিল। কিন্তু শেষ দিকে নির্বাচনে না লড়ার সিদ্ধান্ত নেন। ভোটে নিজে না লড়লেও নিজের পছন্দের দলের প্রার্থীদের জন্য সবার কাছে ভোট চেয়েছেন এই নায়ক। কুমিল্লার ছেলে ফেরদৌস ঢাকা-১৭ আসনের ভোটার। এ এলাকায় আওয়ামী লীগের হয়ে লড়ছেন বরেণ্য অভিনয়শিল্পী আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। আজ শনিবার দুপুরে প্রথম আলোকে ফেরদৌস বলেন, ‘অনেকে হয়তো মনে করছেন, এভাবে নির্বাচনী প্রচারণায় থাকা ঠিক হয়নি। আমি তা মানতে মোটেও রাজি নই। আমি যা করেছি, আমার মন থেকেই করেছি। আমার বিশ্বাস আমাকে নিয়ে গেছে। আমার কাছে এর চেয়ে ভালো কোনো অপশন আছে বলে মনে হয় না। যাই হোক, কাল সকালে সবাইকে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানাই। আমি ভোট দেব সেনানিবাস এলাকার আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজে।’

default-image

অভিনয়শিল্পী জাহিদ হাসানকে এবার অনেক জায়গায় নির্বাচনী প্রচারণায় দেখা গেছে। নিজের জন্মস্থান সিরাজগঞ্জ-২ (সদর উপজেলার আংশিক ও কামারখন্দ) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবে মিল্লাতের পক্ষে ভোট চাইতে মাঠে সোচ্চার ছিলেন। ঢাকা-১০ আসনের ভোটার জাহিদ হাসান আগামীকাল দিনের শুরুতেই ভোট দেবেন। তিনি দেশের সবাইকে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান। এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস, একই আসনে ধানের শীষ প্রার্থী আবদুল মান্নান।

default-image

অভিনয়শিল্পী আজিজুল হাকিম ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার বাসিন্দা। ঢাকা-১৩ আসনের ভোটার তিনি। আগামীকাল সকালে ভোট দেবেন মোহাম্মদপুর জয়েন্ট কোয়ার্টার এলাকার কাদেরিয়া মাদ্রাসায়। এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাদেক খান ও বিএনপির আবদুস সালাম।

রাজনীতিতে কখনো সোচ্চার দেখা যায়নি মাহফুজ আহমেদকে। তবে এবার তিনিও মাঠে নেমেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা, বিশ্বাস আর ভালোবাসা থেকে তাঁর দলের প্রার্থীদের জন্য দেশের বিভিন্ন থানা ও জেলায় গিয়ে ভোটারদের কাছে ভোট চেয়েছেন। প্রচারণার শেষ দুই দিন তিনি ছিলেন লালমনিরহাটে। সেখানে তিনি শ্বশুর জি এম কাদেরের জন্য ভোট চেয়েছেন। টেলিভিশন নাটকের জনপ্রিয় এই অভিনয়শিল্পী লক্ষ্মীপুর-১ আসনের ভোটার। এ আসন থেকে মহাজোটের হয়ে নৌকা প্রতীকে লড়ছেন তরীকত ফেডারেশনের আনোয়ার হোসেন খান আর ধানের শীষ প্রতীকে লড়ছেন এলডিপির শাহাদাৎ হোসেন সেলিম।

default-image

চলচ্চিত্র নায়িকাদের মধ্যে এবার নির্বাচনী প্রচারণায় সরব ছিলেন পূর্ণিমা। রাজপথে যেমন তাঁকে দেখা গেছে, তেমনি তাঁকে পাওয়া গেছে ভার্চ্যুয়াল জগতেও। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বাসিন্দা পূর্ণিমার নির্বাচনী আসন ঢাকা-১৮। দুপুরের আগে খিলক্ষেত এলাকার একটি কেন্দ্রে ভোট দেবেন তিনি। এ আসন থেকে নৌকা প্রতীকে লড়ছেন আওয়ামী লীগের সাহারা খাতুন আর জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) প্রার্থী শহীদ উদ্দিন মাহমুদ ধানের শীষ প্রতীকে লড়ছেন।

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের চাষাঢ়া এলাকার ভোটার চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী। ভোটের দিন নির্বাচনী এলাকা ঘুরে দেখবেন বলে জানান তিনি। বললেন, ‘ভোটের দিন কোনো শুটিং নেই। ভোট দিয়েই সারা দিন আশপাশের এলাকা ঘুরে ঘুরে দেখব। ভোটের দিন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সবাই যেন ভোট দিতে পারেন, সেটাই আশা করছি।’

default-image

ভোট দিতে জন্মস্থান কিশোরগঞ্জে গেছেন চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। সেখানে প্রচারণারও অংশ নিয়েছেন এই নায়ক। জন্মস্থানে যাওয়ার আগে এই নায়ককে ভোট চাইতে দেশের নানা প্রান্তে ছুটতে দেখা গেছে। সাইমন কিশোরগঞ্জ-১ আসন (সদর) এলাকার ভোটার। বললেন, ‘আমার ভোটকেন্দ্র হলো শোলাকিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। সকালেই ভোট দেব। এরপর সারা দিন ভোটকেন্দ্রে বন্ধুদের নিয়ে আড্ডা দেব। আশপাশে ভোটকেন্দ্র ঘুরে ঘুরে দেখব। ভোটের পর এলাকায় বন্ধুদের নিয়ে পিকনিকের আয়োজন রয়েছে—সবকিছু শেষ করে ২ জানুয়ারি ঢাকায় ফেরার ইচ্ছে।’

default-image

ঢালিউডে এ বছর সবচেয়ে আলোচিত চিত্রনায়ক সিয়াম আহমেদ। নাটক ও বিজ্ঞাপনচিত্র থেকে চলচ্চিত্রে এসে বাজিমাত করেছেন। জীবনে দ্বিতীয়বারের মতো ভোট দিতে যাচ্ছেন। তরুণ এই নায়কের আশা, ভোটের দিন সারা দেশে যেন সুষ্ঠু পরিবেশ থাকে। রাজারবাগ এলাকার ছেলে সিয়াম ঢাকা-১৯ আসনের ভোটার। বললেন, ‘রাজারবাগ এলাকার ভোটকেন্দ্রে ভোট দেব। ওই দিন ভোট দেওয়ার পর কোনো কাজ রাখছি না। ভোট দেওয়া শেষে নিজেকে এবং পরিবারকে সময় দেব।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0