default-image

পুরো দিনটাই দারুণ ব্যস্ততার মধ্যে কাটল পশ্চিমবঙ্গ থেকে আসা টালিউড তারকাদের। এ দেশের তারকাদের ব্যস্ততাও কম ছিল না। প্রথমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে মধ্যাহ্নভোজ, এরপর পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আয়োজনে বিকেলের নাশতার আড্ডা।
শেষটা দিয়েই শুরু করা যাক। বিকেলে হঠাৎ ডাক পড়ল রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনা থেকে। সেখানে ছিমছাম পরিবেশে চা-নাশতার আয়োজন করেছেন বাংলাদেশে সফররত ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই আমন্ত্রণে সাড়া দিয়েই এফডিসি থেকে যমুনায় গেলেন অভিনেতা শাকিব খান, অমিত হাসান, জায়েদ খান, নিরব, পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান, মুশফিকুর রহমান গুলজার, আবু মুসা দেবু, মোস্তফা কামাল রাজ, শাহীন কবির টুটুল। ভারত থেকে আসা টালিউড শিল্পী ও কলাকুশলীদের মধ্যে ছিলেন গৌতম ঘোষ, প্রসেনজিৎ, দেবসহ আরও কয়েকজন।
এদিকে মধ্যাহ্নভোজটিও ছিল বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের চলচ্চিত্র তারকাদের জন্য বিশেষ কিছু। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে গণভবনে হাজির হলেন অভিনেতা ফেরদৌস ও অভিনেত্রী মৌসুমী। সঙ্গে ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর ও সাংসদ তারানা হালিম। বাংলাদেেশ সফররত পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ছিলেন টালিউড অভিনেতা দেব ও অভিনেত্রী মুনমুন সেন।
গণভবনে মধ্যাহ্নভোজের অতিথি হয়ে ফেরদৌস জানালেন, তাঁর জীবনের শ্রেষ্ঠ মধ্যাহ্নভোজ এটি। তিনি বললেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাকে দেখেই হাসতে হাসতে বললেন, আমাদের তারকা চলে এসেছে। ওদের তারকাদের আসতে বলো।’
মধ্যাহ্নভোজের বিষয়টি আগে থেকে জানতেন না মৌসুমী। এ নিয়ে মৌসুমী বললেন, ‘আমি বুঝতেই পারিনি যে এত সম্মানিত ব্যক্তিদের জন্য আয়োজিত মধ্যাহ্নভোজে আমাকে ডাকা হবে।’
প্রধানমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী দুজনই তাঁদের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন। মৌসুমী বললেন, ‘আমি যখন খাচ্ছিলাম না, তখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হেসে হেসে বললেন, “বুঝেছি, ডায়েটে আছ বলে তুমি খাচ্ছ না!’”

বিজ্ঞাপন
বিনোদন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন