>শ্রীলঙ্কার কলম্বোয় বাংলাদেশের শততম টেস্টের বিজয়ের আনন্দ ছড়িয়ে গেছে এ দেশের তারকাদের মধ্যেও। গ্যালারিতে যাওয়া হয়নি, তবে বিভিন্ন অঙ্গনের তারকারা দেশে বসেই উদ্যাপন করেছেন বিজয়ের আনন্দ। এমন কয়েকজন যাঁরা বাংলাদেশের খেলা হলেই মাঠে যান, তাঁরা জানিয়েছেন বিজয়ের অনুভূতি।
default-image

বনানীর রাস্তায় মিছিল করেছি
ইরেশ যাকের, অভিনয়শিল্পী
আমরা সবাই মিলে আমাদের বনানীর অফিসে বসে খেলা দেখছিলাম। খেলা শেষ হওয়ার পরপরই বনানীর রাস্তায় মিছিল করেছি। আসলে দেশের বাইরে জয়ী হওয়াটা আমাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট। কারণ, এর মধ্য দিয়ে সবাইকে দেখিয়ে দিলাম, আমরা যেকোনো জায়গায় জিততে পারি। আমাদের টেস্টের অভিজ্ঞতাও কম। সে হিসেবে এই জয়টা আমাদের জন্য খুব জরুরি ছিল। সবাইকে অভিনন্দন।

default-image

আমার জন্মদিনের সেরা উপহার
মারিয়া নূর, উপস্থাপক
বাংলাদেশের বিজয়ে এত আনন্দিত হয়েছি যে ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। তবে এই খেলা মাঠে বসে দেখতে পারলে বিজয়ের আনন্দ দ্বিগুণ হতো। আগামীকাল আমার জন্মদিন। মাঠে বসে এই খেলাটা দেখতে পারলে এটা হতো আমার জন্মদিনের সেরা উপহার। তবে জয়টা দেশের বাইরে হওয়ায় সমালোচকদের মুখে ছাই দেওয়া গেছে। সবাই বলাবলি করে, নিজ দেশে খেলা হয় বলে নাকি আমরা জিতি। এবার দেশের বাইরে জিতে প্রমাণ করে দিলাম, আমরা কী!

default-image

রেডিওতে শুনেছি
মৌসুমী হামিদ, অভিনয়শিল্পী
আমরা শুটিং করছিলাম গাজীপুরের পুবাইলে চটের আগা নামক একটি জায়গায়। এখানে টিভি দেখার উপায় নেই। তাই সবাই মিলে রেডিওতে খেলা শুনছিলাম। বাংলাদেশের জয়ের খবরটা শুনে আমরা সবাই একসঙ্গে উল্লাস করেছি। আজ দেশে খেলা হলে অবশ্যই মাঠে থাকতাম। মাঠে বসে খেলা দেখে বিজয়োল্লাস করার মজা অন্য রকম।

default-image

ভয়ও করছিল
মিশু সাব্বির, অভিনয়শিল্পী
উত্তরায় শুটিং চলছিল। আমাদের এমন কপাল, শুটিং বাদ দিয়ে খেলা দেখার সুযোগ নেই। তবে শুটিংয়ের ফাঁকে মুঠোফোন থেকে ওয়েবসাইটে গিয়ে খেলার আপডেট নিচ্ছিলাম। রান বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যখন উইকেট পড়ছিল, তখন খুব টেনশনে ছিলাম। ভয়ও করছিল। শেষ অবধি বাংলাদেশ জিতেছে, এটাই বড় আনন্দ।

গ্রন্থনা: হাবিবুল্লাহ সিদ্দিক

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন